মেইন ম্যেনু

পুলিশ সদরদপ্তরে বাবুল আক্তার

দীর্ঘ দিন পর পুলিশ সদরদপ্তরে গেছেন আলোচিত পুলিশ সুপার (এসপি) বাবুল আক্তার। বুধবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে তিনি পুলিশ সদরদপ্তরে যান। পদোন্নতির পর তিনি এখানেই সংযুক্ত ছিলেন।

সদরদপ্তরের একটি সূত্র বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তবে তিনি কাজে যোগদানের জন্যই সেখানে গেছেন নাকি অন্য কোনো কারণে তা নিশ্চিত করে জানা যায়নি।

দুপুর ২টা ১০ মিনিটে তিনি পায়ে হেঁটেই হেডকোয়ার্টার থেকে বেরিয়ে যান।

গত ৫ জুন চট্টগ্রাম নগরীর জিইসি’র মোড় এলাকায় ছেলেকে স্কুলবাসে তুলে দিতে যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তদের ছুরিকাঘাত ও গুলিতে খুন হন এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু। এ ঘটনার পরদিন পাঁচলাইশ থানায় বাবুল আক্তার বাদী হয়ে একটি হত্যামামলা দায়ের করেন।

ঘটনার রহস্য উদঘাটনে কাজ করছে গোয়েন্দা পুলিশ, র‌্যাব, সিআইডি, পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) ও কাউন্টার টেররিজম ইউনিট (সিটিআই)। তবে মামলার মূল তদন্তে আছে চট্টগ্রাম মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ।

এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জঙ্গি সম্পৃক্ততা প্রথমেই উড়িয়ে দিয়েছে পুলিশ। এরপর নানা গুজব ছড়িয়ে পড়ে। বাবুল আক্তারেই স্ত্রী হত্যায় জড়িত এমন গুঞ্জনও চলে।

গত ২৫ জুন নাটকীয়ভাবে তাকে ঢাকার শ্বশুরবাড়ির থেকে মধ্যরাতে ডেকে নিয়ে টানা ১৫ ঘণ্টা বসিয়ে রাখা হয় ডিবি কার্যালয়ে। পরে বাসায় ফিরেয়ে দেয়া হলেও পুলিশ সদর দপ্তরে সংযুক্ত এসপি বাবুল আক্তার আর স্বপদে যোগদান করেননি।

গণমাধ্যমে খবর বের হয়েছিল, বাবুল আক্তার চাকরি থেকে পদত্যাগ করেছেন ওই দিন রাতেই। তবে এনিয়ে নানা খবর বের হলেও সরকার কিংবা পুলিশের পক্ষ থেকে কোনও সুষ্পষ্ট বক্তব্য পাওয়া যায়নি। এমনকি এ নিয়ে মুখ খুলেননি বাবুল আক্তার নিজেও। পরে পুলিশের মহা পরিদর্শক জানান, বাবুল আক্তার এখনো চাকরিতে আছেন।






মন্তব্য চালু নেই