মেইন ম্যেনু

পৃথিবীর বিপজ্জনক যতো রেললাইন [ভিডিও]

রেলের চেয়ে নিরাপদ ও আরামদায়ক আর কোনো পথ নেই। পৃথিবীতে রেল ভ্রমণের এমন অনেক পথ আছে যেখান থেকে অসম্ভব সুন্দর দৃশ্য উপভোগ করা যায়। আবার কিছু পথ আছে যা অনেক ভয়ঙ্কর ও বিপজ্জনক।

উত্তর জার্মানির এক প্রদেশে রেললাইন এমনভাবে এঁকেবেঁকে গিয়েছে, যা দেখে মনেই হয় না এটা কোনো রেললাইন। ভিয়েতানামে আবার রেললাইনের ওপরেই বসে বাজার। ট্রেন এলে তাড়াতাড়ি গুটিয়ে পাশে দাঁড়িয়ে থাকে ক্রেতা-বিক্রেতারা। আবার ট্রেন চলে গেলে ছাউনি পেতে লাইনের একেবারে পাশেই বসে যায় বাজার।

আমেরিকার নর্থ ওয়িহোতে আবার ট্রেন চলে যে ট্র্যাকে সেটা চোখে না দেখলে বিশ্বাস করা যায় না। আয়ারল্যান্ডে আবার ট্রেন লাইনে বরফ জমে গেলে, ট্রেনকে বরফ কেটে দ্রুত গতিতে এগোতে হয়। কোথাও আবার ট্রেন লাইনে হাঁটু সমান পানি। আর সেই পানি ঠেলেই ট্রেন একেবারে জাহাজের মতো এগিয়ে চলে।

১. জর্জ টাউন লুপ রেলপথ

জর্জ টাউন লুপ রেলপথ১৯ শতকের গোড়ার দিকে রুপার খনির আকরিক পরিবহনের জন্য এই রেলপথ চালু করা হয়। এই পথেই আছে ডেভিলস গেট হাই ব্রিজ যা কিনা ১০০ ফুট উঁচুতে। এ ব্রিজে চলার সময় ট্রেনকে যেতে হয় একদম অস্বাভাবিক ধীর গতিতে, একদমই না চললেই নয় এমনভাবে। এই ধীর গতিই এই রেলপথকে করে তোলে আরো ভয়ঙ্কর ও শিহরণ জাগানো।

হোয়াইট পাস ও ইয়ুকুন রুট

২. হোয়াইট পাস ও ইয়ুকুন রুট

পর্বতকে আঁকড়ে থাকা এই রেলপথ নির্মাণ করা হয় ১৮৯৮ সালে, যখন ক্লন্ডিকেতে সোনার খনিগুলো চালু ছিল। বর্তমানে ২০ মাইল দীর্ঘ এই পথ ব্যাবহার করা হয় দুঃসাহসী পর্যটকদের আনন্দ দিতে।

 

ত্রেন এ লাস নুবেস৩. ত্রেন এ লাস নুবেস

চিলি সীমান্তের কাছে আর্জেন্টিনার উত্তর মধ্য ভাগে এই রেলপথ। যা নির্মাণে প্রায় ২৭ বছর লেগে যায়। অনিন্দ্য সুন্দর কিন্তু অত্যন্ত ভয়ঙ্কর এই রেলপথে রয়েছে আঁকাবাঁকা রাস্তা, চক্রাকার রাস্তা, আছে ২১টি টানেল ও ১৩টি দৃষ্টিনন্দন সেতু।

 

চেন্নাই-রামেস্বারাম রেলপথ৪. চেন্নাই-রামেস্বারাম রেলপথ

চেন্নাই-রামেস্বারামের এই রেলপথের মাঝেই আছে পামদান ব্রিজ যা ১৯১৪ সালে চালু করা হয়। রামেস্বারাম দ্বীপকে একত্রিত করতে গিয়ে এই রেলপথ সাগরের মাঝে প্রায় ২০৬৫ মিটার পর্যন্ত চলে গেছে। ভারতীয় ইঞ্জিনিয়ারদের অসাধারণ নির্মাণের সাক্ষী এই সেতু ও রেলপথ।

৫. শয়তানের নাক রেলপথ৫. শয়তানের নাক রেলপথ

নারিজ ডেল ডিয়াবলো বা ডেভিলস নোস বাংলা করলে যা দাঁড়ায় শয়তানের নাক এই ট্রেনটি সমুদ্র পৃষ্ঠথেকে প্রায় ৯০০০ ফুট উপরে আন্দিজ পর্বত মালার উপরে অবস্থিত। এটা নিঃসন্দেহে পৃথিবীর অন্যতম ভয়াল এক রেলপথ। পর্বতের আঁকাবাঁকা পথ, উঁচুনিচু চূড়া ও পুরনো রেলপথের শিহরণ জাগানো এই ভ্রমণ দুঃসাহসিক পর্যটকদের যে কাউকেই আকৃষ্ট করবে।

৬. দ্যা ডেথ রেলওয়ে

দ্যা ডেথ রেলওয়েমিয়ানমারের পাশে থাইল্যান্ডের কাঞ্চাহানবুরি অঞ্চলে ডেথ রেলওয়ে পথের অবস্থান। যদিও এই পথ অনেক বিপজ্জনক পাহাড়ি পথ ও জঙ্গলে পরিপূর্ণ কিন্তু এর নামকরণ কিন্তু এ কারণে হয়নি। এর নামকরণ হয়েছে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় জাপানী শাসন আমলে এর নির্মাণের সময় অনেক শ্রমিকের মৃত্যুর কারণে। এ পথের সবচেয়ে বিখ্যাত স্থান হলো কাওয়াই নদীর উপরের ব্রিজটি।

৭. আসো মিনামি রেলপথ
এই রেলপথটি জাপানের সবচেয়ে আগ্নেয়গিরি প্রবণ অঞ্চলের ওপর দিয়ে বহমান। এই পথের যাত্রীরা জানে না কখন আগামী অগ্ন্যুৎপাত হতে যাচ্ছে। ভাগ্য ভালো কিংবা খারাপ যাই হোক না কেন তারা যে কোনো সময়েই ভয়ঙ্কর এক অভিজ্ঞতার সম্মুখিন হতে যাচ্ছে। এ পথের যাত্রীরা আগ্নেয়গিরির লাভায় পুড়ে যাওয়া জঙ্গলের নয়নাভিরাম দৃশ্য উপভোগ করতে পারেন।






মন্তব্য চালু নেই