মেইন ম্যেনু

পেশা তার নির্বাচনী প্রচারণা!

আবুল কালাম। বয়স ৬৫। পেশা নির্বাচনী প্রচারণা। বিষয়টি একটু বিস্ময়করই বটে!

দীর্ঘ ৪৫ বছর ধরে তিনি এটিকেই পেশা হিসেবে নিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে চলেছেন। যখন যে এলাকায় নির্বাচন হয়, তখন সে এলাকায় গিয়ে প্রচারণা চালান তিনি। বিনিময়ে কিছু টাকা নেন। তা দিয়েই চলে তার তিন সদস্যের সংসার।

আবুল কালামের বাড়ি রাজশাহীর বাঘা উপজেলার পীরগাছা নতুনপাড়া গ্রামে। তার বাবার নাম মৃত আক্তার হোসেন।

বর্তমানে তিনি বাঘার আড়ানী ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে প্রচারণা চালাচ্ছেন। সারা শরীরে ছোট-বড় পোস্টার জড়িয়ে নৌকা প্রতীকের প্রচারণা চালাচ্ছেন তিনি। তার কাছে কোনো মাইক নেই। নেই কোনো যানবাহনও। পায়ে হেঁটে হেঁটে গলা ফাটিয়ে আওয়াজ তুলছেন, ‘ভোট ভোট ভোট, নৌকা মার্কায় ভোট দিন।’

সোমবার বিকেলে আড়ানী ইউনিয়নে নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছিলেন তিনি। তখন তার পেছন পেছন কিছু উৎসুক মানুষও ছুটছিলেন। এরই ফাঁকে কথা হয় তার সঙ্গে।

আবুল কালাম বলেন, ‘আড়ানী ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রভাষক রফিকুল ইসলাম রফিকের পক্ষে তিনি এখন সারাদিন প্রচারণা চালাচ্ছেন। পুরো ইউনিয়ন ঘুরে কোটার মোড়ের নির্বাচনী অফিস থেকে রাতে তার মজুরি সংগ্রহ করে বাড়ি ফেরেন। তার সারাদিনের মজুরি ২০০ টাকা। প্রচারণা চলবে নির্বাচনের আগের দিন পর্যন্ত।’

আবুল কালাম জানান, অন্য কোনো কাজ করতে পারেন না তিনি। দেশের যে প্রান্তেই নির্বাচন হোক না কেন, খবর পেলেই তিনি সেখানে চলে যান প্রচারণার জন্য। কী নৌকা, কী ধানের শীষ, যে প্রার্থী তাকে কাজ দেন; তার হয়েই প্রচারণা চালান তিনি। ইউপি ও জাতীয় সংসদ নির্বাচনসহ পৌরসভা, স্কুল-কলেজ, সমিতি ও বাজার কমিটির নির্বাচনসহ সব ধরনের নির্বাচনেই প্রচারণা চালান তিনি। এভাবে চলছে প্রায় ৪৫ বছর।

তিনি বলেন, ‘এ পর্যন্ত যেসব প্রচারণা চালিয়েছি, তাদের অধিকাংশই নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন। প্রচারণায় আমার এই অভিনব কৌশল দেখে কখনো কখনো কোনো কোনো বিরোধী প্রার্থীর পক্ষ থেকে হুমকি-ধামকিও আসে। তবে কাজটা আমার ভালো লাগে। তাই করে যাই।’






মন্তব্য চালু নেই