মেইন ম্যেনু

পোরশা-রাজশাহী সড়কের বেহাল দশা : চরম দূর্ভোগে যাত্রীরা

নওগাঁর পোরশা উপজেলা থেকে বিভাগীয় শহর রাজশাহী যাবার একমাত্র সহজ ও কাছের পথ সারাইগাছী-আড্ডা-নাচোল গোদাগাড়ির সড়কটি। এ সড়ক দিয়েই পোরশার সারাইগাছী মোড় থেকে প্রতিদিন সকালে দুটি বিআরটিসি ও দুটি মেইল সার্ভিস রাজশাহীর উদোশ্যে ছেড়ে যায়। আবার সেগুলো বিকেলে ফেরত আসে। একই স্থান থেকে একই রাস্তা দিয়ে বিকালে একটি বিআরটিসি ও অপর একটি মেইল সার্ভিস রাজশাহীর উদোশ্যে ছেড়ে গিয়ে পরের দিন সকালে ফেরত আসে। এছাড়া পোরশা থেকে রাজশাহী যাওয়া বা আসার আর কোন যানবাহন নেই। একটি মাত্র রাস্তাদিয়ে মাত্র এ কয়টি গাড়ি বিভাগীয় শহরে যাতায়াত করে। পোরশা থেকে রাজশাহী আর রাজশাহী থেকে পোরশার যাত্রী সংখ্যার তুলনায় গাড়ির সংখ্যা খুবই কম হওয়ায় প্রতিদিন এ গাড়িগুলোতে যাত্রীদের ব্যাপক ভিড় লক্ষ করা যায়। সিট না পেলে দাড়িয়ে থাকা অনেক দুর্ভোগের ব্যাপার। জরুরী কাজে দাঁড়িয়ে দুর্ভোগের মধ্যে হলেও যেতে হয়।

তবে বর্তমানে এর সাথে যোগ হয়েছে রাস্তার দুর্ভোগ। পোরশা থেকে রাজশাহী পথের সারাইগছী-আড্ডা হয়ে নাচোল-আমনুরা পর্যন্ত ৫০কি: মি: রাস্তা এখন শুধু গর্ত আর গর্ত। প্রতিদিন এ রাস্তায় অসংখ্য ভারি যানবাহন চলাচল করায় একেবারই নাজুক হয়ে গেছে সড়কটি। বর্তমানে দু-চার দিন পর পর আকাশের বৃষ্টি হওয়ার কারনে আরও বেড়েছে দুর্ভোগ। আকাশের বৃষ্টি হলে গর্তগুলো পানিতে ডুবে থাকছে। যানবাহন চালকরা তা অনুমান করতে না পেরে গর্তের মধ্যে গাড়ির চাকা নামিয়ে দিচ্ছেন। এতে ঘটছে দুর্ঘটনা। আর তখনই শুরু হচ্ছে যানজট। সড়কটির একটু পর পর দেখা দিয়েছে বিশালাকার সব গর্ত নামের ক্ষত। ফলে সড়কটিতে যান চলাচল এখন অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে উঠেছে। প্রতিদিনই সড়কটির কোথাও না কোথাও ছোট-বড় দুর্ঘটনা লেগেই থাকছে। আর দুর্ঘটনা ঘটলে ঘন্টার পর ঘন্টা আটকিয়ে থাকছে বড় বড় যানবাহন।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, পোরশা উপজেলা থেকে বিভাগীয় শহর রাজশাহী যেতে ১শ কি: মি: রাস্তা। রাস্তাটির সারাইগাছী মোড় থেকে আড্ডা বাজার ২০কি: মি:। আড্ডা বাজার থেকে আমনুরা বাজার ৩০কি: মি:। সারাইগাছী মোড় থেকে আড্ডা রোড যেমন ব্যাস্ততম রাস্তা তেমনি আড্ডা থেকে আমনুরাও ব্যাস্ততম রাস্তা। অপরদিকে কালাইবাড়ী থেকে সারাইগাছি পর্যন্ত রাস্তাতেও অনেক জায়গায় কার্পেটিং উঠে গেছে। প্রতিদিন এ রাস্তাগুলোতে অসংখ্য ছোট বড়সহ ভারী যানবাহন চলাচল করে। বর্তমানে রাস্তাটির যেখানে সেখানে ঘন ঘন আর বড় বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। এ কারনে সময়মত কোন গাড়িই গন্তব্য স্থলে পৌছতে পারছেনা।
রাজশাহী থেকে সারাইগাছী মোড়ে বিআরটিসি বা মেইল সার্ভিসে যেখানে সময় লাগতো দুই থেকে সোয়া দুই ঘন্টা সেখানে বর্তমানে সময় লাগছে ৪ঘন্টা। অনেক সময় যানজট সৃষ্টি হলে ৪ঘন্টাও ছাড়িয়ে যাচ্ছে। এতে করে যাত্রী সাধারন চরম ভোগান্তির স্বীকার হচ্ছেন। তাদের দাবী অতিশিঘ্রই যাতে এই রাস্তাটি পূর্ণ সংস্কার করা হয়।






মন্তব্য চালু নেই