মেইন ম্যেনু

পোড়াতে হলো দেড় লাখ ব্যালট পেপার

২৩৩ পৌরসভা নির্বাচনের মেয়র, সাধারণ ও সংরক্ষিত পদের ২ কোটি ১০ লাখের বেশি ব্যালট পেপার ছাপা শেষ হয়েছে।

শুক্র ও শনিবার সরকারি ছাপাখানা থেকে এসব ব্যালট পেপার ও নির্বাচনী সামগ্রী বিতরণ করবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

তবে ইসি কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, আদালতের আদেশে প্রার্থিতা ফিরে পাওয়ায় মঙ্গলবার পর্যন্ত তিন পৌরসভার দেড় লাখের বেশি ব্যালট পেপার পুড়িয়ে নষ্ট করে নতুন করে ছাপতে হয়েছে। এছাড়া নির্বাচন স্থগিত হওয়ায় প্রায় ৩৫ হাজার ব্যালট পেপার আর কাজে লাগছে না।

এমন পরিস্থিতিতে আদালত নতুন কোনো আদেশ দিলে নতুন করে ব্যালট পেপার ছাপানোর প্রস্তুতিও রাখা হয়েছে।

৩০ ডিসেম্বর ভোটের আগের দিন সব পৌরসভায় রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছবে ব্যালট পেপারসহ নির্বাচনী সামগ্রী।

নির্বাচনে ১২ হাজারেরও বেশি প্রার্থী এবং ভোটার ৭০ লাখের বেশি।

সংশ্লিষ্ট পৌরসভার রিটার্নিং কর্মকর্তার প্রতিনিধিদের মাধ্যমে নির্বাচনী এলাকায় নিরাপত্তা প্রহরায় এসব ব্যালট পেপার পৌঁছানো হবে বলে জানিয়েছেন ইসির সহকারী সচিব সৈয়দ গোলাম রাশেদ।

রাণীশংকৈল পৌরসভার নির্বাচন স্থগিত হওয়ায় মেয়র, সাধারণ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদের ৩৫ হাজার ব্যালট পেপার আর ব্যবহারের সুযোগ নেই।

ঝিনাইদহের মহেশপুর, কুষ্টিয়া সদর ও বগুড়ার সারিয়াকান্দি পৌরসভায় প্রার্থিতা ফেরায় মেয়র পদে ছাপানো ব্যালট কাজে লাগবে না। এই তিন পৌরসভার দেড় লাখের বেশি ব্যালট পেপার পুড়িয়ে নতুন করে ছাপতে হয়েছে।

ইসির এক কর্মকর্তা বলেন, “নতুন প্রার্থীসহ নাম-প্রতীক নিয়ে ব্যালট পেপার ছাপানো হয়েছে। এ সংখ্যা বাড়ার শঙ্কাও রয়েছে। কারণ কোথাও ভোট স্থগিত বা প্রার্থী সংখ্যা বাড়লে-কমলে ছাপানোগুলো নষ্ট করে নতুন করে ছাপাতে হবে।”

ব্যালট পেপার মুদ্রণ কাজ তদারকিতে থাকাদের একজন ইসির প্রশাসনিক কর্মকর্তা মো. শামসুজ্জামান জানান, ভোটযোগ্য সব পৌরসভার ব্যালট পেপার ছাপা শেষ। আদালতের নতুন কোনো নির্দেশনার ভিত্তিতে ইসি যে সিদ্ধান্ত নেবে তা ভোটের আগে সম্পন্ন করার প্রস্তুতিও রয়েছে।

৪৮ ঘণ্টা নির্বাচনী এলাকায় যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা

ইসির নির্দেশনা মেনে ২৯ ডিসেম্বর রাত ১২টা (দিবাগত মধ্যরাত) থেকে ৩০ ডিসেম্বর রাত ১২টা পর্যন্ত যান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ।

২৩৩ পৌরসভায় বেবি ট্যাক্সি, ট্যাক্সি ক্যাব, মাইক্রোবাস, জিপ, পিক আপ, কার, বাস, ট্রাক ও টেম্পোতে এ নিষেধাজ্ঞা থাকবে।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের উপসচিব কামরুল আহসান এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করেছে।

নির্বাচনী এলাকায় ২৭ ডিসেম্বর রাত ১২টা থেকে ৩১ ডিসেম্বর ভোর ৬টা পর্যন্ত মোটরসাইকেল চলাচলেও নিষেধাজ্ঞা রয়েছে।

ইসি কর্মকর্তারা জানান, কমিশন ও রিটার্নিং কর্মকর্তার অনুমোদিত পরিচয়পত্রধারী নির্বাচন সংশ্লিষ্টদের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা প্রযোজ্য হবে না। জাতীয় মহাসড়ক, বন্দর, জরুরি পণ্য সরবরাহ ও অন্যান্য প্রয়োজনে এ নিষেধাজ্ঞা শিথিল থাকবে।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই