মেইন ম্যেনু

প্যারিসে মুসলমানদের মধ্যে আতঙ্ক

প্যারিসে শুক্রবার রাতে স্মরণকালের ভয়াবহ হামলা এবং আইএস এই হামলার দায় স্বীকার করার পর সেদেশে মুসলমানদের মধ্যে অস্বস্তি নেমে এসেছে।

অনেকে আবার আতঙ্কিত বোধ করছেন।শুক্রবার রাতে প্যারিসের যে কটি স্থানে হামলা হয়েছে তাদের মধ্যে কাসা নস্ত্রা রেস্তোরাও রয়েছে।

আর এই রোস্তোরাটি মুসলিম অধ্যুষিত এলাকায় হওয়ায় হামলার পর মুসলমানদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

এই এলাকায় আরব বংশোদ্ভূত মানুষেরও বসবাস।এ ঘটনায় অনেক মুসলমানই বিব্রত এবং আতঙ্কিত।খবর বিবিসি’র।

জামাল নামে ৪৪ বছর বয়স্ক এক বাসিন্দা চিন্তিত হয়ে পড়েছেন এই হামলার পর মুসলিম সম্প্রদায়ের উপর কি ধরণের প্রভাব এসে পড়বে সেটা নিয়ে।

‘আমরা হামলাকারীদের মতো নই। তাদের সাথে আমাদের কোনও সম্পর্ক নেই। কিন্তু ফরাসীরা আমাদেরকে আর আপন করে নেবে না’।

চলতি বছরের গোড়ার দিকে শার্লি হেবদো পত্রিকায় চালানো হামলায় ফরাসী নাগরিকেরা জড়িত আছে এটা প্রতীয়মান হবার পর প্রশ্ন ওঠে ফ্রান্সে বসবাসরত তরুণ মুসলিমদের জীবনযাত্রায় এর কি প্রভাব নেমে আসবে সেটা নিয়ে।

সাফেরের কাছে এর কোনও জবাব নেই। সে একজন আলজেরিয়া বংশোদ্ভূত মুসলিম।

তার গল্পটা অনেকটাই লাসানা ব্যাথিলির সাথে মিলে যায়। মালির এই তরুণী অভিবাসী জানুয়ারি মাসে একটি সুপারমার্কেটে হামলা চলাকালে ভীত সন্ত্রস্ত্র ক্রেতাদেরকে তার দোকানের ভেতর লুকিয়ে রেখেছিলেন।

সাফের এবং লাসানা দুজনেই মুসলিম। দুজনেই মানুষের জীবন বাঁচাতে নিজেদের জীবনের ঝুঁকি নিয়েছেন।

কিন্তু এই মুসলিমদেরই একটি দল আবার সৃষ্টিকর্তার নামে মানুষ হত্যা করছে কেন? জানতে চাইলে সাফের বলেন, ‘এর সাথে ধর্মের কোনও সম্পর্ক নেই’।

“সত্যিকারের মুসলমানেরা কখনো মানুষ হত্যা করবে না। এরা অপরাধী”।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই