মেইন ম্যেনু

প্রকাশ্যে স্কুলছাত্রী লাঞ্চিতঃ সেই ছেলেটির নাম রুহুল আমিন

হবিগঞ্জে অষ্টম শ্রেণির এক ছাত্রীকে লাঞ্চিত করা ছেলেটির পরিচয় পাওয়া গেছে। তার নাম রুহুল আমিন। হবিগঞ্জ হাই স্কুল এন্ড কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্র সে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে প্রকাশিত ভিডিওটি নিয়ে তোলপাড় শুরু হলে নড়েচড়ে বসেছে প্রশাসন। তবে এখনও নির্যাতনকারী কিশোর রুহুল আমিনকে আটক করা যায়নি।

এ ঘটনায় এলাকাজুড়ে প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে। রুহুল আমিনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন নির্যাতিত ওই শিক্ষার্থীর সহপাঠি, শিক্ষক, অভিভাবক ও সাধারণ মনুষ। প্রতিবাদে রবিবার সকালে মানববন্ধনের করবে হবিগঞ্জ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

নির্যাতিতার পরিবারের অভিযোগ অনুযায়ি, রুহুল আমিন ওই শিক্ষার্থীকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়। তার প্রস্তাব প্রত্যাখান করে ওই ছাত্রীটি। এতে সাড়া না পেয়ে বখাটে রাহুল বিদ্যালয়ে আসা-যাওয়ার পথে ওই ছাত্রীটিকে উত্যক্ত করতো। এ খবর জানতে পেরে কিছুদিন আগে ছাত্রীটির এক আত্মীয় রাহুলকে চড় থাপ্পড় দেয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ২৬ আগস্ট স্কুল ছুটি শেষে বাসায় যাওয়ার পথে ওই ছাত্রীটিকে এলোপাথারি চড়-থাপ্পড় মারে বখাটে রাহুল। এ সময় রাহুল বলতে থাকে ছাত্রীটির যে স্বজন তাকে চড়-থাপ্পড় মেরেছে তার হাত-পা কেটে ছাত্রীটির কাছে পাঠাবে।

৩১ সেকেন্ডের এ ভিডিওচিত্র গত ১ সেপ্টেম্বর রানা আহমেদ নামের একজন ও এরপর দিন আমাদের হবিগঞ্জ নামের আরো একটি ফেসবুক পেইজ থেকে শেয়ার করা হয়। এর পর থেকেই একের পর এক শেয়ারের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে।

এ ব্যাপারে হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি মো. নাজিম উদ্দিন জানান, বখাটে রাহুলকে আটক করতে আমাদের অভিযান অব্যাহত আছে। আশা করছি শিগগিরই তাকে আটক করা যাবে বলে জানান তিনি।

আরো পড়ুনঃ

এবার প্রকাশ্যে স্কুলছাত্রীকে চড়থাপ্পর মারলো বখাটে যুবক (ভিডিওসহ)






মন্তব্য চালু নেই