মেইন ম্যেনু

প্রক্টরের অপসারণ দাবিতে প্রশাসনিক ভবনে তালা : পাঁচ সদস্যের তদন্ত কমিটি

বেরোবি প্রতিনিধি : রংপুরের বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থী দীপু চন্দ্র রায়ের বাবার মৃত্যুর ঘটনা ও অবৈধভাবে পুলিশ ফাঁড়িতে দীর্ঘক্ষণ আটকে রাখায় প্রক্টরের অপসারণ চেয়ে প্রশাসনিক ভবনে তালা দিয়ে আন্দোলন করেছেন বিভাগটির শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার সকাল সোয়া ১০টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত প্রশাসনিক ভবনে তালা দিয়ে অবস্থান করেন শিক্ষার্থীরা। এ সময় সকল প্রশাসনিক কার্যক্রম বন্ধ থাকে।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর ড. শফিক আশরাফ এ ঘটনা তদন্তে `তদন্ত কমিটি’` গঠন করা হয়েছে জানিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ায় কথা জানালে শিক্ষার্থীরা তালা খুলে দেন।আগামী রবিবার পর্যন্ত আন্দোলন কর্মসূচি স্থগিত রাখা হয়েছে বলে জানান শিক্ষার্থীরা।

বর্তমানে প্রশাসনিক কার্যক্রম স্বাভাবিক রয়েছে বলেও জানান সহকারী প্রক্টর।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা হেয়াত মামুদ ভবনের সামনে অবস্থান নিয়ে প্রক্টরের অপসারণের দাবিতে বিক্ষোভ করেছেন।

এ ঘটনায় গতকাল বুধবার বিকালে বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. নাজমুল হককে আহ্বায়ক ও শফিক আশরাফকে সদস্য সচিব করে পাঁচ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিষয়টি নিয়ে নড়েচড়ে বসছে বিশ্ববিদ্যালয়ের নবনির্বাচিত ছাত্রলীগ শাখা কমিটি।তারা এ ঘটনার সুষ্ঠু সমাধান দাবি করেছেন একই সাথে যেন বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশৃঙ্কলা সৃষ্টি না হয় সেদিকে সুদৃষ্টি কামনা করেছেন বিভাগীয় প্রধানের কাছে।

ক্যাম্পাস বর্তমানে শান্ত রয়েছে। শিক্ষার্থীরা শান্তিপূর্ণভাবে অবস্থান করছেন বলে জানা গেছে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত গঠিত তদন্ত কমিটি তাদের তদন্ত কার্যক্রম শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন কমিটির আহ্বায়ক ড. নাজমুল হক।






মন্তব্য চালু নেই