মেইন ম্যেনু

প্রচণ্ড তাপদাহে দিনাজপুরে কুয়াশা

মানুষ এবং প্রাণিকুল যখন গরমে অতিষ্ঠ, রোদে রাস্তায় বের হতে পারছে না, মাঠে ধান কাটার শ্রমিক পাওয়া যাচ্ছে না, তখন হঠাৎ করে শনিবার সকালে দিনাজপুরে ঘন কুয়াশা মানুষকে অবাক করেছে। বয়োজ্যেষ্ঠরা বলছেন, এমন আবহাওয়া তারা কখনো দেখেন নি।

আজ ১৭ বৈশাখ। প্রচণ্ড তাপদাহে পুড়ছে দিনাজপুরের জনপদ। রোদে মানুষ রাস্তায় বের হতে পারছে না। ধান কাটতে আসা শ্রমিকরা রোদ ও গরম সহ্য করতে না পেরে কাজ ছেড়ে চলে যাচ্ছেন। ফলে ধান কাটাই ও মাড়াই ব্যাহত হচ্ছে। গরমের কারণে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে মানুষ হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন। শিশু রোগ বৃদ্ধি পেয়েছে।

দিনাজপুর শহরের উপশহর মিস্ত্রীপাড়া এলাকার ৯০ বছরের বৃদ্ধ আব্দুল আজিজ জানালেন, তিনি বৈশাখ মাসে ঝড় বৃষ্টি, অনাবৃষ্টি, খরা দেখেছেন। কিন্তু ঘন কুয়াশা দেখেন নি। এবার দেখলেন। তিনি বলেন, সবই আল্লাহর মহিমা। তিনিই ভাল বলতে পারবেন কি কারণে আজ এই অবস্থা।

দিনাজপুর আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. তোফাজ্জল হোসেন জানান, দিনাজপুরে এপ্রিল মাসে এক ফোটাও বৃষ্টি হয়নি। অথচ আকাশে মেঘ ভেসে বেড়াচ্ছে। আবহাওয়ার পরিবর্তনের কারণে বৃষ্টিপাত হচ্ছে না। তবে মে মাসের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে বৃষ্টিপাত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। দিনাজপুরে তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৪০ ডিগ্রি পর্যন্ত উঠানামা করছে।

কুয়াশার কারণে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাতাসে ৬০ থেকে ৭০ শতাংশ জলীয়বাষ্প ভেসে বেড়ার কারণে ঘন কুয়াশা দেখা দিয়েছিল। তবে বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে তা কেটে গেছে।






মন্তব্য চালু নেই