মেইন ম্যেনু

প্রচলিত আইনে বিচার শেষেই বিজিবি সদস্যকে ফেরত দিবে মিয়ানমার

নাফ নদীতে গত বুধবার গোলাগুলির ঘটনায় বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) নায়েক আবদুর রাজ্জাককে অপহরণ করে নিয়ে যায় মিয়ানমার সীমান্ত পুলিশ (বিজিপি)। নায়েক আবদুর রাজ্জাককে এখনও ফেরত দেয়নি মিয়ানমার। এদিকে বাংলাদেশকে মিয়ানমার জানিয়েছে, দেশটির প্রচলিত আইনে বিচার প্রক্রিয়া শেষেই নায়েক আবদুর রাজ্জাককে ফেরত দেওয়া হবে।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে শনিবার রাতে এই তথ্য জানা গেছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা জানান, মিয়ানমারে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশনের রাষ্ট্রদূত সুফিউর রহমান শনিবার মিয়ানমারের পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন। তিনি বিজিবির অপহৃত নায়েক আবদুর রাজ্জাককে দ্রুত ফিরিয়ে দেওয়ার অনুরোধ জানান। এ সময় মিয়ানমারের পক্ষ থেকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতকে জানান হয়, বিজিবির অপহৃত নায়েক আবদুর রাজ্জাক অবৈধভাবে মিয়ানমারের জলসীমানায় প্রবেশ করায় তাকে আটক করা হয়েছে। মিয়ানমারের প্রচলিত আইনে বিচার প্রক্রিয়া শেষেই তাকে ফেরত দেওয়া হবে।

এর আগে ঢাকায় নিযুক্ত মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত মাইও মাইনকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তলব করে। এ সময় রাষ্ট্রদূত মাইও মাইনকে বলা হয়, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) নায়েক আবদুর রাজ্জাককে ফেরত দেওয়ার বিষয়ে মিয়ানমার সরকার যাতে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে, মিয়ানমার সীমান্ত পুলিশ (বিজিপি) গত বুধবার বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) নায়েক আবদুর রাজ্জাককে অপহরণ করে। নায়েক আবদুর রাজ্জাককে বৃহস্পতিবার ফেরত দেওয়ার কথা থাকলেও মিয়ানমার থেকে কোনো সাড়া না পাওয়ায় বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে এই বিষয়ে সহযোগিতা চায়। এর পর বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত পররাষ্ট্র মাইও মাইনকে মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়।

মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূতকে বলা হয়, অপহৃত বিজিবি নায়েক আবদুর রাজ্জাককে ফেরত দিতে মিয়ানমার সরকার যাতে যথাযথ পদক্ষেপ নেয়। তলবের প্রেক্ষিতে রাষ্ট্রদূত মাইও মাইন এই ঘটনায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, এই বিষয়ে তিনি দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য সংশ্লিষ্টদের অনুরোধ করবেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে আরও জানা গেছে, মিয়ানমারের রাষ্ট্রদূত মাইও মাইনকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করে এই ঘটনার প্রতিবাদ জানালে ও বিজিবির নায়েক আবদুর রাজ্জাককে দ্রুত ফেরত দিতে বললেও কোনো কাজ হয়নি। তাই মিয়ানমারে অবস্থিত বাংলাদেশ মিশনের রাষ্ট্রদূত সুফিউর রহমান শনিবার মিয়ানমারের পররাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বিজিবির অপহৃত নায়েককে দ্রুত ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য আবারও অনুরোধ করেন।

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় আরও জানিয়েছে, বাংলাদেশ বিশ্বাস করে যে প্রতিবেশি দেশের সঙ্গে ভালো সম্পর্ক বজায় রাখার স্বার্থে মিয়ানমার খুব দ্রুত বিজিবির নায়েককে ফিরিয়ে দিবে।

জানা গেছে, বুধবার সকালে টেকনাফের দমমিয়া চেকপোস্টের বিপরীতে লালদিয়ায় একদল চোরকারবারীকে ধাওয়া করে বিজিবি সদস্যরা। একপর্যায়ে চোরকারবারীরা বিজিবির আওতার বাইরে চলে যায়। এ সময় মিয়ানমারের সীমান্ত পুলিশের সদস্যরা বিজিবির টহল দলের ওপর গুলিবর্ষণ করে। এতে বিজিবির সদস্য বিপ্লব গুলিবিদ্ধ হন। এ ঘটনায় বিজিবির নায়েক আবদুর রাজ্জাক নাফ নদীতে পড়ে গেলে মিয়ানমারের সীমান্ত পুলিশ তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়।

মিয়ানমারের সীমান্ত পুলিশের অপহরণ করা বিজিবির নায়েক আবদুর রাজ্জাককে ফেরত দেওয়ার বিষয়ে গত বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হবার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত কোনো সাড়া মেলেনি। ফলে নায়েক আবদুর রাজ্জাকের ফেরার বিষয়টি এখনও অনিশ্চিত।






মন্তব্য চালু নেই