মেইন ম্যেনু

প্রতিবদ্ধি মেধাবী ছাত্রী শ্যামলী লেখাপড়ার জন্য জেলা প্রশাষকের হস্তক্ষেপ কামনা

শামীম রেজা, চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রতিনিধি: প্রতিবন্ধি হলেই মানুষ অচল না তারা ও আর পাঁচটা মানুষের মত মানুষ হতে চাই।দামুড়হুদা পরানপুরের অসহায় বুদ্ধি প্রতিবদ্ধি মেধাবী ছাত্রী শ্যামলী লেখাপড়া শিখে মানুষের মত মানুষ হতে চাই।তার আশা জেলা প্রশাষক মহাদয় সহযোগিতার হাত বাড়াবেন ।

পৃথিবীর আলো দোখার পর থেকেই দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনা পৌরসভার পরানপুর বেলে মাঠ পাড়ার সেলিমউদ্দীনের মেয়ে দর্শনা মধ্যমিক বিদ্যলয়ে ৮ম শ্রেনীর মেধাবী ছাত্রী (রোল নং ৪) অসহায় বুদ্ধি প্রতিবদ্ধি শ্যামলী খাতুনের ডান হাত অচল হওয়া সত্তে ও লেখা পড়া চালিয়ে যাচ্ছে রিতিমত।

কিন্তু তার দূরভাগ্য যে ৬ বছর বয়সে তার …. বাবা শ্যমলীও তার মা কে ছেড়ে অন্য একটি মেয়ের সাথে বিয়ে করে চলে চলে যায়।

এখন মা মেয়ে দুই জনই অসহায়ের মত নানার বাড়ি কষ্টে দিন যাপন করছে। তার পরও লেখাপড়া ছাড়েনি শ্যমলী। শ্যমলী আদো অদো করে নতুন খবরকে জানায় আমার বড় ইচ্ছা লেখাপড়া করে মানুষের মত মানুষ হয়ে নিজের পায়ে দাঁড়াতে চাই অ করো মুখের দিকে চেয়ে না থাকতে হয়।

কিন্তু আমাদের কে জোগাবে লেখাপড়া খরচ। আমরা গরীব মানুষ আমার বাবা থেকেও নেই বলতে বলতে কেঁদে ফেললো।জেলা প্রশাষক মহাদয়ের কাছে আকুল আকুতি তার খরচের ব্যবস্থা করবেন এমটিই প্রত্যশা শ্যামলীর ।






মন্তব্য চালু নেই