মেইন ম্যেনু

প্রথমবারের মতো শিশু বাজেট

আগামী ২০১৫-১৬ অর্থবছরের জন্য দেশে প্রথমবারের মতো শিশু বাজেট প্রণয়ন করা হয়েছে।

শিশুদের আর্থসামাজিক উন্নয়নের সঙ্গে প্রত্যক্ষভাবে জড়িত এমন পাঁচটি মন্ত্রণালয়ের শিশু সংশ্লিষ্ট ব্যয় বিবেচনায় নিয়ে ‘শিশুদের নিয়ে বাজেট ভাবনা’ শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে।

চলতি ২০১৪-১৫ অর্থবছরে শিশুদের উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য ৫০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল। এবার পূর্ণাঙ্গ বাজেট প্রণয়ন করা হলো।

বৃহস্পতিবার অর্থমন্ত্রী বাজেট বক্তৃতায় এ প্রতিবেদন প্রসঙ্গে বলেন, শিশুদের চাহিদা পূরণ, অধিকার ও কল্যাণের সঙ্গে সরাসরি সম্পর্কিত কর্মসূচি, উন্নয়ন প্রকল্প ও কার্যক্রমসমূহ বিবেচনায় নেওয়া হয়েছে। এ থেকে জাতীয় বাজেটে শিশুদের উন্নয়নে যে বরাদ্দ দেওয়া হচ্ছে বা যে সকল কার্যক্রম গ্রহণ ও নীতিকৌশল প্রয়োগ করা হচ্ছে সে সম্পর্কে একটি ধারণা পাওয়া যাবে।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘একটি পূর্ণাঙ্গ শিশু বাজেট প্রণয়ন করতে হলে সব মন্ত্রণালয়াধীন শিশুকল্যাণ সংশ্লিষ্ট কার্যক্রমকে বিবেচনায় নিতে হবে। তবে সবার আগে প্রয়োজন এসব কার্যক্রম চিহ্নিতকরণ এবং তাদের প্রভাব মূল্যায়নের জন্য একটি উপযুক্ত কাঠামো প্রণয়ন। আমরা এই কাজ পর্যায়ক্রমে সম্পন্ন করার আশা রাখি।’

জাতীয় সংসদে বাজেট বক্তৃতায় অর্থমন্ত্রী জানান, সরকার ‘স্ট্রেনদেনিং ক্যাপাসিটি ফর চাইল্ড ফোকাসড বাজেটিং ইন বাংলাদেশ’শীর্ষক একটি প্রকল্প গ্রহণ করতে যাচ্ছে। এ প্রকল্পের কার্যক্রম জুলাই থেকে শুরু হবে। এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে শিশুদের কল্যাণে বরাদ্দকৃত সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার ও রিপোর্টিং-এর ক্ষেত্রে অর্থ বিভাগ ও শিশু খাত সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর সক্ষমতা বাড়বে।

শিশু বাজেটের সঙ্গে সম্পৃক্ত পাঁচ মন্ত্রণালয় হচ্ছে- স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, শিক্ষা মন্ত্রণালয়, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়, সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয় এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

আগামী ২০১৫-১৬ অর্থবছরের জন্য স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে শিশুদের কল্যাণে কার্যক্রম পরিচালনায় ১২১ কোটি ৯৭ লাখ ২৩ হাজার টাকা ব্যয়ের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে শিশুদের কল্যাণে কার্যক্রম পরিচালনায় ৭ হাজার ২৮২ কোটি ৩ লাখ ৩০ হাজার টাকা ব্যয়ের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।

এ ছাড়া প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে ৬ হাজার ৯৬৫ কোটি ৩৯ লাখ ৫৫ হাজার, সমাজ কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অধীনে ৩১৬ কোটি ৪৫ লাখ ৯২ হাজার এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অধীনে ২৭২ কোটি ৪৬ লাখ ৪৪ হাজার টাকা ব্যয়ের কথা উল্লেখ করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই