মেইন ম্যেনু

প্রথম দফায় ভোলার ৪৫টি ইউনিয়নে ইউপি নির্বাচন

মোঃ ফজলে আলম, ভোলা থেকে : প্রথম পর্যায়ে ভোলার ৪৫ টি ইউনিয়ন পরিষদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশন থেকে ৭৫২টি ইউনিয়ন পরিষদের ভোট গ্রহণ করার জন্য তপসিল ঘোষণা করা হয়। এ তপসিলে লালমোহন উপজেলার বদরপুর, ধলীগৌরনগর, লালমোহন, লর্ডহার্ডিঞ্জ ও রমাগঞ্জ ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। বাকী ৪ ইউনিয়নে নির্বাচন হচ্ছে না। লালমোহনের এসব ইউনিয়নে ৩১ মার্চ ২০১১ সালে ইউপি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল।

ঘোষিত তপসিল অনুযায়ী জানা যায়, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ তারিখ ২২ ফের্রুয়ারি। মনোনয়নপত্র বাছাই ২৩ ও ২৪ ফের্রুয়ারি, আপিল দাখিল ২৫ থেকে ২৭ ফের্রুয়ারি, আপিল নিষ্পত্তি ২৮ ফের্রুয়ারি থেকে ১মার্চ। আর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ০২ মার্চ, প্রতীক বরাদ্দ ৩ মার্চ এবং ভোট গ্রহণ ২২ মার্চ।

প্রথম তপসিলে ভোলার ৪৫ টি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে তজুমদ্দিন উপজেলায় চাঁচড়া, চাঁদপুর ও শম্ভুপুর ইউনিয়ন। চরফ্যাশন উপজেলার চর মাদ্রাজ, চর মানিকা, হাজারীগঞ্জ, রসুলপুর, এওয়াজপুর, জাহানপুর, চরকলমি, ঢালচর, মুজিবনগর, নজরুলনগর। মনপুরা উপজেলার হাজিরহাট। দৌলতখানের সৈয়দপুর, চরখলিফা, চরপাতা, মদনপুর, মেদুয়া, উত্তর জয়নগর, দক্ষিণ জয়নগর। বোরহানউদ্দিনের বড়মানিকা, দেউলা, গংগাপুর, হাসাননগর, কাচিয়া, কুতুবা, পক্ষিয়া, সাচড়া, টবগি। ভোলা সদরের আলী নগর, বাপ্তা, চরসামাইয়া, চরশিবপুর, ধনিয়া, পশ্চিম ইলিশা, উত্তর দিঘলদী, দক্ষিণ দিঘলদী, ভেদুরিয়া, ভেলুমিয়া।

তবে সারা দেশে চার হাজার ৫৪৬টি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে চলতি বছর মেয়াদ উত্তীর্ণ হবে চার হাজার ২৭৫টি ইউনিয়ন পরিষদের। ছয়টি ধাপে এগুলোতে নির্বাচন করবে কমিশন। দ্বিতীয় ধাপে ৩১ মার্চ, তৃতীয় ধাপে ২৩ এপ্রিল, চতুর্থ ধাপে ৭ মে, পঞ্চম ধাপে ২৮ মে এবং ষষ্ঠ ধাপে ৪ জুন ভোট গ্রহণ করা হবে।

নির্বাচন কমিশনের নির্দেশ অনুযায়ী জেলা নির্বাচন কর্মকর্তারা তাঁদের এলাকার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের বিস্তারিত সময়সূচি নির্ধারণ করে গেজেট প্রজ্ঞাপন জারি করবেন।

এই প্রথমবার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদের নির্বাচন দলীয় ভিত্তিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনে শুধু নিবন্ধিত রাজনৈতিক দলের মনোনীত প্র্রার্থী ও স্বতন্ত্র প্রার্থীরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে পারবেন। কোনো রাজনৈতিক দল কোনো ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে একাধিক ব্যক্তিকে মনোনয়ন প্রদান করতে পারবে না।

লালমোহন পৌরসভার নতুন ওয়ার্ড সৃষ্ট জটিলতায় চরভূতার এক ভোটারের মামলার কারণে পৌরসভা নির্বাচন স্থগিত হয়। এর সাথে সাথে চরভূতা ও কালমা ইউনিয়নেরও নির্বাচন আটকে যায়।

অপরদিকে পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়নে চর কচুয়াখালীর নতুন ভোটার সংক্রান্ত মামলায় ৫ বছর আগে নির্বাচনের মেয়াদ শেষ হলেও তখনও নির্বাচন হয়নি। একই মামলায় এবারো আটকে গেছে ওই ইউনিয়নের নির্বাচন।

এছাড়া ফরাজগঞ্জ ইউনিয়নের মেয়াদ শেষ হতে এখনো প্রায় ৪ বছর বাকী রয়েছে। যার কারণে এ তপসিলে লালমোহনের বদরপুর, ধলীগৌরনগর, লালমোহন, লর্ডহার্ডিঞ্জ ও রমাগঞ্জ ইউনিয়নের নির্বাচন হচ্ছে।

পরবর্তী তপসিলে লালমোহনের বাকী ইউনিয়নগুলোর নির্বাচন হবে কী-না তা জানে না উপজেলা নির্বাচন অফিস।






মন্তব্য চালু নেই