মেইন ম্যেনু

বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু

প্রথম দিনেই বাসের টিকিট সংকট

আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে দেশের উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনালে বাসের অগ্রিম টিকিট নিতে আসা মানুষের উপচে পড়া ভিড়। তবে যথারীতি প্রথম দিনেই গন্তব্যের টিকিট পাওয়া যাচ্ছে না। আজ শুক্রবার ভোর সাড়ে পাঁচটা থেকে বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়। টিকিট থাকা সাপেক্ষে ৪ ও ৫ জুলাইও অগ্রিম টিকিট বিক্রি চলবে।

সকালে রাজধানীর গাবতলী বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে দেখা যায়, বাসের অগ্রিম টিকিটের জন্য শত শত মানুষ কাউন্টারের সামনে লাইনে দাঁড়িয়ে। টিকিট-প্রত্যাশীদের অভিযোগ, টিকিটের দাম বেশি হওয়ায় তাঁরা বিপাকে পড়েছেন। লাইনে অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকেও টিকিট পাচ্ছেন না অনেকে। আবার কেউ টিকিট পেলেও কাঙ্ক্ষিত দিন ও সময়ের টিকিট মিলছে না।

গত সোমবার বাংলাদেশ বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের গাবতলী কার্যালয়ে এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এছাড়া সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) বাস ১০ জুলাই এবং ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে আগামী ৯ জুলাই থেকে।

বাস মালিকরা ১২ রমজান থেকে ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রিতে আগ্রহী ছিলেন। তবে ১২ রমজান মঙ্গলবার হওয়ায় তা পেছানো হয়। এক্ষেত্রে ৩ জুলাই শুক্রবার থেকে উত্তরাঞ্চল ও দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের ৬০টির বেশি রুটে ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। গাবতলী, কল্যাণপুর ও শ্যামলীর বিভিন্ন কাউন্টার থেকে পরিবহন সার্ভিসগুলো এ টিকিট বিক্রি শুরু করেছে। তবে গত বারের মতো সায়েদাবাদ ও মহাখালী থেকে কোন অগ্রিম টিকিট দেয়া হবে না।

বাস-ট্রাক ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি ও শ্যামলী পরিবহনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রমেশ চন্দ্র ঘোষ বলেন, ‘৩ জুলাই অর্থাৎ ১৫ রমজান সকাল থেকে বাসের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। তবে কোন কোম্পানি আগ্রহী থাকলে আগে পরেও টিকিট বিক্রি শুরু করতে পারে। এক্ষেত্রে সরকার নির্ধারিত যে ভাড়া আছে, তা-ই নেয়া হবে। এর চেয়ে বেশি ভাড়া আদায় করা হবে না। যদি কেউ বেশি ভাড়া নেয়, তাহলে সমিতির পক্ষ থেকে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’






মন্তব্য চালু নেই