মেইন ম্যেনু

প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখল ১২ বছরের এই কিশোর, এক চিঠিতেই বদলে গেল জীবন

ভারতের গুজরাতের আমরেলি জেলার পার্থ। চার মাস আগে মস্তিষ্কের বিরল রোগ ধরা পড়ে ১২ বছরের এই কিশোরের। পার্থর বাবা শুধু আমরেলি নয়, আমদাবাদের ডাক্তারদেরও দেখান। কিন্তু অনেক চিকিৎসার পরেও তার শরীরের কোনও উন্নতি হয়নি।

পার্থর বাবা দীনেশ জানান, তিনি তাঁর সম্পত্তি, স্ত্রীর গয়নাগাটি বিক্রি করে দেন ছেলের চিকিৎসার জন্য। শেষে আর না পেরে, প্রধানমন্ত্রীর দফতর ও স্বাস্থ্যমন্ত্রকে চিঠি লেখেন তিনি। কয়েকদিন বাদে, পিএমও-র থেকে উত্তর পান। নরেন্দ্র মোদীর অফিস থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়, পার্থর জন্য বিনামূল্যে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হচ্ছে দিল্লির এইমস হাসপাতালে। সেইমতো পার্থকে নিয়ে তার পরিবার দিল্লিতে চলে আসে।

এই মুহূর্তে এইমস-এ এই কিশোরের চিকিৎসা চলছে। প্রধানমন্ত্রী সমস্ত ধরনের আর্থিক সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছেন বলে জানান পার্থর বাবা। দূরদর্শন নিউজ-কে দীনেশ বলেন, ‘শুধু আর্থিক সাহায্য নয়, প্রধানমন্ত্রী আমাদের মনেও সাহস জুগিয়েছেন।’

চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, পার্থের মস্তিষ্কের অসুখ খুবই জটিল। তার অবস্থা বেশ সঙ্কটজনক। তবু সবরকম চেষ্টা চালাচ্ছেন তাঁরা। প্রধানমন্ত্রী পার্থকে নতুন জীবনের আশ্বাস দিয়েছেন ঠিকই, কিন্তু নিজের সঙ্গে এখনও নিজেকেই অনেকটা লড়তে হবে পার্থকে। -এবেলা।






মন্তব্য চালু নেই