মেইন ম্যেনু

প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ দিলেন বিএনপি নেতা গয়েশ্বর !

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, ভ্যাট প্রত্যাহারের দাবিতে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা রাজপথে যে আন্দোলন গড়ে তুলছে এর জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ। ছাত্র-ছাত্রীরা সারাদিন ও রাত ফেসবুক নিয়ে ব্যস্ত থাকতো। অথচ শিক্ষার্থীদের উপর সরকার ভ্যাট ধার্য করার পরপরই ছাত্ররা রাজপথে নেমেছে। এর জন্য অবশ্যই প্রধানমন্ত্রী ধন্যবাদ পাওয়ার যোগ্য।

শুক্রবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাব ভিআইপি লাউঞ্জে স্বাধীনতা ফোরাম আয়োজিত বেগম খালেদা জিয়ার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

গয়েশ্বর চন্দ্র বলেন, গণতন্ত্রের চেতনাকে বাদ দিয়ে স্বাধীনতার চেতনা বাস্তবায়ন হয় না। আওয়ামী লীগের চিন্তার সাথে জনগণের চিন্তার কোন মিল নেই। আওয়ামী লীগের মুক্তিযোদ্ধার চিন্তার সাথে জনগণের চিন্তার রাত আর দিন প্রার্থক্য রয়েছে।

চলতি বছরের বাজেট দিয়ে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত বিশ্ব রেকর্ড করেছেন মন্তব্য করে গয়েশ্বর বলেন, এই বাজেটের ঘাটতি টাকা পূরণ করা অসম্ভব। তবে আমি অর্থমন্ত্রীকে বাজেটের ঘাতটি টাকা পূরণের জন্য পরামর্শ দিতে পারি, পরামর্শটা হলো, অর্থমন্ত্রীকে কেচি নিয়ে রাস্তার নেমে জনগণের পকেট কাটতে হবে। আর এক্ষেত্রে মানবিক দিক বিবেচনা করলে হবে না।

খালেদা জিয়ার কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়া আজও কারামুক্ত নন। কারন বিএনপির সিনিয়র নেতারা যদি কারাগাড়ে বন্দি থাকে তাহলে কিভাবে তিনি মুক্ত হন। বিএনপির সিনিয়র নেতারা যেদিন মুক্তি লাভ করবেন সেদিনই তিনি কারামুক্তি লাভ করবেন বলেনও মন্তব্য করেন তিনি।

এক-এগারো ষড়যন্ত্র এখনও অব্যাহত আছে মন্তব্য করে বিএনপির এই শীর্ষ নেতা বলেন, ১/১১ ষড়যন্ত্র এখনও শেষ হয়নি। আর এক-এগারো ষড়যন্ত্রকারীদের অনেকেই বেগম খালেদা জিয়াকে বেকায়দায় ফেলে পদ-পদবী নিয়েছিল।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আবু নাসের মুহাম্মাদ রহমাতুল্লাহের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বিএনপির সহ-তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, গণ শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া, সহ-স্বেচ্ছাবিষয়ক সম্পাদক এ বি এম মোশাররফ হোসেন প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই