মেইন ম্যেনু

প্রধানমন্ত্রীকে ফেসবুকে হুমকি, ইরাদ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে মামলা

ফেসবুকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দেয়ার অভিযোগে বিএনপির বহিষ্কৃত নেতা তানভীর আহমেদ সিদ্দিকীর ছেলে ইরাদ আহমেদ সিদ্দিকীর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন এক আওয়ামী লীগ নেতা।

মঙ্গলবার রাতে জেলার কালিয়াকৈর থানায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুর রশিদ ওই মামলা করেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

মামলায় বলা হয়, গত ২৫ সেপ্টেম্বর রাত ১০টার পরে ইরাদ আহমেদ সিদ্দিকী তার নিজের ফেইসবুক স্ট্যাটাসে লিখেন, ‘শেখ হাসিনাকে হত্যা ছাড়া বাংলাদেশের ক্ষমতার ভারসাম্য ও গণতন্ত্র ফেরানো সম্ভব নয়।’ বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানকে নিয়ে ব্যঙ্গচিত্র বানিয়েও ফেসবুকে পোস্ট করেন ইরাদ আহমেদ সিদ্দিকী।

এই ঘটনায় যোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি ২০১৩ এর ৫৭ ধারায় মামলা করা হয় ইরাদের বিরুদ্ধে।

ইরাদের শাস্তি চেয়ে বুধবার কালিয়াকৈরে বিক্ষোভ করেছে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

এই মামলার বিষয়ে জানতে চাইলে কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুল মোতালেব মিয়া বলেন, ‘অভিযুক্তকে গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।’

ইরাদ আহমেদ সিদ্দিকী বিএনপির বিএনপির প্রতিষ্ঠাকালীন স্থায়ী কমিটির সদস্য তানভীর আহমেদ সিদ্দিকীর ছেলে। বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ছেলের তোলা গুরুতর অভিযোগের কারণে ২০০৯ সালের ১৭ মার্চ দল থেকে তানভীর আহমেদ সিদ্দিকীকে বহিষ্কার করে বিএনপি।

এই সিদ্ধান্তের এক সপ্তাহ আগে রাজধানীতে সংবাদ সম্মেলন করে ইরাদ নিজেকে ঢাকা সিটি করপোরেশনের মেয়র প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দেন। এ সময় তিনি জানান, মেয়র পদে সমর্থনের জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া তার কাছে পাঁচ কোটি টাকা চেয়েছিলেন।

বিএনপি থেকে বহিষ্কারের পর বাবা-ছেলে রাজনীতিতে আর গুরুত্ব পাননি। তবে ইরাদ ফেইসবুকে নিজের নামে একটি পেইজ চালান যাতে তিনি নিজেকে ছায়া মেয়র হিসেবে পরিচয় দিয়ে আসছেন। তিনি বাংলাদেশে আছেন কি না সে তথ্য নিশ্চিত করে বলতে পারছে না পুলিশ।






মন্তব্য চালু নেই