মেইন ম্যেনু

প্রধানমন্ত্রীকে বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা চিঠি লিখে রেকর্ড

নানান বিষয় নিয়ে বিভিন্ন ‘পন্থায়’ আন্দোলন করে আলোচিত হয়েছেন অনেকেই। কেউ কেউ পরিচিতি লাভে দেশের গণ্ডি ছাড়িয়ে মারিয়েছেন আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডল। এ পথে একটু এগিয়ে আছেন উনাল বেনলিআলপ নামের এক তুর্কি নাগরিক। তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী আহমেদ দাউদওউলুর কাছে ১৩৬ মিটার লম্বা চিঠি লিখে গিনেজ বুকে নাম লেখাতে চলেছেন তিনি।

দেশের পুলিশ সদস্যদের নানা সমস্যা সম্ভাবনা ও প্রতিকার আশা করে লেখা চিঠির লেখক উনাল বেনলিআলপের একজন অবসরপ্রাপ্ত নাবিক। ইতোমধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কাছে পৌছানোর উদ্দেশ্যে চিঠির মূল কপি ইজমির শহরের প্রধানমন্ত্রী শাখা দপ্তরে দাখিল করা হয়েছে। ৪৩০ পাতার জোড়া লাগানো চিঠিটি অল্প কিছু দিনের মাঝেই প্রধানমন্ত্রীর হাতে পৌছাবে বলে জানিয়েছেন দায়িত্ব পালনকারী কর্মকর্তা।

তবে তথ্যপ্রযুক্তির এ যুগে চিঠি লেখাটা বেনলিআলপের কাছে এই প্রথম নয়। ২ বছর আগে আরও একবার উনাল পুলিশ নিয়ে ২১৫ পাতার একটি চিঠি লিখেছিলেন রাষ্ট্রপতি এরদোগান বরাবর। যার দৈর্ঘ্য ছিলো ৭৫ মিটার। এবার নিজের রেকর্ড ভাঙ্গার সাথে সাথে গিনেজ বুকেও নিজের নাম লেখাতে চলেছেন তিনি।

চিঠির বিষয়বস্তু পুলিশ হবার কারণ হিসেবে উনাল জানিয়েছেন ‘পুলিশ জনগণের বন্ধু তাই তাদের থেকে অনেক কিছু আশা করে জনগণ। তবে সরকারেরও উচিৎ পুলিশের উপযুক্ত সমাদর করা।’

গত ১৭০ বছরের ইতিহাসে তুরস্কের পুলিশ প্রশাসনের নানা চাওয়া পাওয়া, সমস্যা ও অপূর্ণ সমাদরকেই তাই চিঠির মাধ্যমে তুলে ধরেছেন সরকারের কাছে।

তবে এখানেই থেমে না থেকে পরবর্তী চেষ্টায় ১ কিলোমিটার লম্বা চিঠি লিখার পরিকল্পনা রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। তবে রেকর্ড নয় চিঠির বিষয় বস্তুর উপর সরকারের নজর কাড়ার প্রচেষ্টাও যেনো সফল হয় এই আশা তার।

প্রাপ্ত এক গবেষণায় দেখা গেছে তুরস্কের মানুষের গড় আয়ু ৫৬.৯ বছর হলেও পুলিশ প্রশাসনে চাকরিরতদের বয়সের গড় সাধারণের চেয়ে ১৯ বছর কম। তাই লেখকদের কাছে তুরস্কের পুলিশ প্রসাশন এমনি আগ্রহের একটা বিষয়।






মন্তব্য চালু নেই