মেইন ম্যেনু

প্রধানমন্ত্রীর পা ছুঁয়ে দোয়া নিলেন ৮ নেতা

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা। ওই সময় লন্ডন থেকে সরাসরি সিলেট ওসমানী আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে আসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে আগে থেকেই প্রস্তুত ছিলেন স্থানীয় নেতারা। সেই অনুসারে ঘণ্টাখানিক আগেই তারা বিমানবন্দরে উপস্থিত হন। প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন শতাধিক নেতা। এর মধ্যে সিলেটের ৮ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পা ছুঁয়ে সালাম করেন।

যুক্তরাজ্য সফর শেষে বিমানের একটি ফ্লাইটে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা ৮ মিনিটে প্রধানমন্ত্রী ওসমানী বিমানবন্দরে নামলে ভিআইপি লাউঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতারা তাকে কদমবুচি করেন।

প্রধানমন্ত্রী ও দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে পা ছুঁয়ে সালামকারীরা হলেন- আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েস, সংসদ সদস্য আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী ও সাবেক সাংসদ সৈয়দা জেবুন্নেসা হক।

তার আগে শেখ হাসিনা ওসমানী বিমানবন্দরে বিমান থেকে নেমেই ভিআইপি লাউঞ্জে আসেন। সেখানে আগ থেকেই আওয়ামী লীগ নেতারা অপেক্ষা করছিলেন। প্রধানমন্ত্রী ভিআইপি লাউঞ্জে প্রবেশের পরই সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে থাকা আওয়ামী লীগ নেতারা একে একে তাকে কদমবুচি করেন। এসময় প্রধানমন্ত্রী তাদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন।

প্রথমেই সিলেট সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরান প্রধানমন্ত্রীকে পা ছুঁয়ে সালাম করেন। পরে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, জেলার সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী, জেলার আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আশফাক আহমদ চৌধুরী, সংসদ সদস্য মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী কয়েস, সংসদ সদস্য আমাতুল কিবরিয়া কেয়া চৌধুরী ও সব শেষে সাবেক সাংসদ সৈয়দা জেবুন্নেসা হক প্রধানমন্ত্রীকে সালম করেন।

পরে প্রধানমন্ত্রী বিমানবন্দরের ভেতরে আওয়ামী লীগ নেতাদের সাথে মতবিনিময় করেন। যাত্রাবিরতি শেষে সকাল ১১টা ৯ মিনিটে বিমানের একই ফ্লাইটে ঢাকা শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উদ্দেশ্যে ওসমানী ত্যাগ করেন প্রধামন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রসঙ্গত, ছয় দিনের যুক্তরাজ্য সফর শেষে গতকাল দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর আগে গত শুক্রবার তিনি ব্যক্তিগত সফরে লন্ডন যান।

লন্ডন পৌঁছানোর পর ভারতের সঙ্গে স্থলসীমা চুক্তি বাস্তবায়নসহ বিভিন্ন অর্জনের জন্য গত রোববার যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের দেয়া সংবর্ধনায় অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী।

পরদিন ব্রিটিশ পার্লামেন্টের নতুন সদস্যদের দেয়া এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানেও অংশ নেন শেখ হাসিনা।

এছাড়ও গত মঙ্গলবার ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ভাগ্নি টিউলিপের প্রথম বক্তব্য শোনেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী যুক্তরাজ্য সফরকালে প্রবাসী থাকা বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা প্রায় প্রতিদিনই কালো পতাকা মিছিলসহ সমাবেশ করেছে। ওই কর্মসূচিতে অংশ নেয়া বেশির ভাগ বিএনপি নেতার বাড়ি সিলেটে।

তাই ওসমানী বিমানবন্দরে পৌঁছে সিলেট আওয়ামী লীগে আয়োজিত এক সভায় স্থানীয় নেতাদের উদ্দেশে দলের সভানেত্রী বলেন, ‘সংগঠন অত্যন্ত দরকারি। সংগঠনটা সাংগঠনিকভাবে যেন গড়ে ওঠে সেদিকে নজর দেবেন।’ বাংলামেইল






মন্তব্য চালু নেই