মেইন ম্যেনু

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ, লন্ডন যাচ্ছেন না আশরাফ

দপ্তর হারানোর পর সৈয়দ আশরাফুল ইসলামকে নিয়ে নানা আলোচনা চলছে সরকারের ভেতরে-বাইরে বিভিন্ন মহলে। কেন তাকে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে সরিয়ে দেয়া হল তা নিয়েও আছে নানা কথা। এসবের কোনোটাই নির্ভরযোগ্য কোনো সূত্রের খবর নয়। তবে সোমবার ও মঙ্গলবার দু’দফায় আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দলের সাধারণ সম্পাদকের সাক্ষাৎ নিয়ে নতুন গুঞ্জন দানা বেঁধেছে।

কথা ছিল, দু-একদিনের মধ্যে স্ত্রী ও সন্তানের সঙ্গে ঈদ করতে লন্ডনে যাচ্ছেন সৈয়দ আশরাফ। সেখানে ছোট ভাইয়ের বিয়ের অনুষ্ঠানেও যোগ দেয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু শেষতক তার এই সফর স্থগিত হয়েছে বলে তারই ঘনিষ্ঠ একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে। তবে এ ব্যাপারে সৈয়দ আশরাফের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে পাওয়া যায়নি।

মন্ত্রীর ঘনিষ্ঠ সূত্র আরও জানায়, দপ্তর হারানোর পর সৈয়দ আশরাফকে নিয়ে গণমাধ্যমসহ বিভিন্ন মহলে আলোচনা নিয়ে বিব্রত বোধ করছেন তিনি। বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকেও বলেছেন। পরে দলীয় প্রধানের সঙ্গে সোমবার ও মঙ্গলবার দু’দফায় দেখা করতে যান আশরাফ। বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী তাকে লন্ডন সফর বাতিল করতে বলেন। পাশাপাশি তিনি যদি চান তাহলে আবারও অন্য কোনো দপ্তরের দায়িত্ব তাকে দেয়ার বিষয়টিও আলোচনা হয়। তবে সৈয়দ আশরাফ বরাবরের মতো এ ব্যাপারে অসম্মতি জানান।

গত বৃহস্পতিবার সৈয়দ আশরাফকে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব থেকে সৈয়দ আশরাফকে অব্যাহত দেয়া হয়। পরে এক ইফতার অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, তিনি ব্যক্তিগত লাভের আশায় রাজনীতি করেন না। তার বাবা (বাংলাদেশের প্রথম অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি সৈয়দ নজরুল ইসলাম) বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে বেইমানি করেননি। সততার সঙ্গে রাজনীতি করেছেন। বেইমানি না করে নেতার জন্য মৃত্যুবরণ করেছেন। আশরাফ বলেন, ‘এটাই আমার রক্ত।’






মন্তব্য চালু নেই