মেইন ম্যেনু

প্রশ্নপত্র ফাঁস ও অর্থ লেনদেনের অভিযোগ

পরীক্ষা শুরুর পর হঠাৎ নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল

প্রশ্নপত্র ফাঁস করে নিয়োগ পরীক্ষা নেওয়ার অভিযোগে একটি নিয়োগ পরীক্ষা বাতিল করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলায়।

বি.আর.ডি.বি এর আওতাভুক্ত কলারোয়া উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি লিমিটেড এর ‘পরিদর্শক’ পদে নিয়োগ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছিল বি.আর.ডি.বি এর মিলনায়তনে। সকাল ১১ টার সময় শুরু হয় ঐ নিয়োগ পরীক্ষাটি। একটি মহল থেকে অভিযোগ আসে মোটা অংকের অর্থ লেন দেন হচ্ছে ঐ পরীক্ষাটিতে। সংশ্লিষ্ট কয়েকজনের যোগসাজসে ঐ পরীক্ষার প্রশ্ন পত্র ফাঁস করে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ ওঠে।

খবর পেয়ে সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া) আসনের সাংসদ ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য এড. মুস্তফা লূৎফুল্লাহ বি.আর.ডি.বি এর উপ-রিচালকের নিকট নিয়োগ পরীক্ষাটি বন্ধ করে দেয়ার জন্য ফোন করেন।
পরীক্ষা শুরু হওয়ার ১৫ মিনিট পর হঠাৎ বন্ধের ঘোষনা আসলে উপস্থিত পরীক্ষার্থীরা জোর প্রতিবাদ জানান। ঘটনাস্থলে কলারোয়া উপজেলার নবনিযুক্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন পর্যায়ের সরকারী কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। ‘পরে পরীক্ষা নেয়া হবে’ আশ্বাস দিয়ে সবাইকে ফিরিয়ে দেয়া হয়।

এ ব্যাপারে সাংসদ এড. মুস্তফা লূৎফুল্লাহ’র সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি আওয়ার নিউজ বিডিকে জানান, কলারোয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পদক আমাকে জানান কলারোয়াতে একটি নিয়োগ পরীক্ষা হচ্ছে মোটা অংকের অর্থের বিনিময়ে। ঐ পরীক্ষায় ২ জনকে নিয়োগ দেয়া হবে। তাদের জন্য আগে থেকেই প্রশ্নপত্র ফাঁস করে দেয়া হয়েছে। তিনি আরো জানান, যে দু’জন কে নিয়োগ দেয়া হবে তারা ছিল জামায়াতের লোক।

উল্লেখ ঐ নিয়োগ পরীক্ষায় ১৪ জনের মধ্যে ১১ জন প্রার্থী পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিলেন। বিষযটি নিয়ে এলাকায় ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই