মেইন ম্যেনু

প্রসাধনীর যত্ন নেবেন যেভাবে

প্রসাধনী কথাটা শুনলেই সবার আগে মাথায় আসে সাজের কথা। নিজেকে সাজের মাধ্যমে ফুটিয়ে তুলতে যেমন প্রসাধনীর প্রয়োজন, তেমনি প্রসাধনীর যত্নাআত্তিও নেয়া প্রয়োজন। আর শখের প্রসাধনীগুলোর সঠিক যত্ন নিলে এগুলো দীর্ঘদিন ব্যবহার করতে পারবেন। আর সঠিকভাবে যত্ন না নিলে খেয়াল না রাখলে তা আপনার ত্বক, চুল সহ অনেক কিছুর ক্ষতি পর্যন্ত করতে পারে। তাই চলুন জেনে নেই কীভাবে আপনি আপনার প্রসাধনীর যত্ন নেবেন।

প্রসাধনী ভালো রাখতে আলাদা আলাদা বক্সে রাখুন। এতে খুঁজে পেতেও সহজ হবে। সব প্রসাধনী তাপ, আর্দ্রতা এবং সূর্যালোকের সঙ্গে বিক্রিয়া করে। প্রসাধনী ৫ থেকে ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় রাখুন। এর চেয়ে কম তাপমাত্রায় রাখলে প্রসাধনী জমে যেতে পারে এবং বেশি তাপমাত্রায় রাখলে নরম হয়ে যেতে পারে।

ত্বকের যত্নে যেসব প্রসাধনী ব্যবহার করা হয় তা ফ্রিজে রেখে ব্যবহার করতে পারেন।

প্রসাধনীর ঢাকনা কখনো খুলে রাখবেন না। ঢাকনা খুলে রাখলে বাতাসে বিক্রিয়া করে প্রসাধনী নষ্ট হয়ে যায়।

মেয়াদ উত্তীর্ণ প্রসাধনী ব্যবহার করবেন না। এতে ত্বকে নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে।

ব্রাশ, পাফ বা স্পঞ্জ এইসব নিয়মিত পরিষ্কার করবেন এবং শুকিয়ে রাখবেন। নিজের ব্যবহার করা পাফ, স্পঞ্জ, তুলি অন্যকে ব্যবহার করতে দেবেন না এবং নিজেও অন্যেরটা ব্যবহার করবেন না। এতে করে কারও স্কিন ডিজিজ থাকলে তা অন্যের ত্বকে ছড়াবে না।

লিপস্টিক শুকিয়ে গেলে কিংবা তা থেকে বাজে গন্ধ বের হলে ব্যবহার করবেন না। লিপ লাইনার নিয়মিত শার্প করে ব্যবহার করবেন।

চোখের সৌন্দর্য বাড়াতে যে কাজল, আইলাইনার, কিংবা মাসকারা ব্যবহার করা হয় তা খুব তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে যায়। আইলাইনার কিংবা মাসকারা জমে গেলে কখনও পানি মিশিয়ে সেটা ব্যবহার করবেন না। তাতে ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণের ভয় থাকে। মাসকারা ও আইলাইনার ঢাকনা খোলার পর ৪ মাসের বেশি ব্যবহার করবেন না।

যেকোনো প্রসাধনীর গায়ে ব্যবহার ও যত্নের বিশেষ কিছু নির্দেশনা লেখা থাকে। ব্যবহারের আগে নির্দেশনা পড়ে তারপর তা ব্যবহার করুন।






মন্তব্য চালু নেই