মেইন ম্যেনু

প্রসিকিউশনের উপর অসন্তুষ্ট প্রধান বিচারপতি

আন্তজাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউশন ও তদন্তসংস্থার প্রতি অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা (এসকে সিনহা)। একথা জানিয়েছেন অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট মাহবুবে আলম।

মঙ্গলবার জামায়াত নেতা মীর কাসেম আলীর শুনানী শেষে সাংবাদিকদের কাছে এমন কথা বলেন অ্যাটর্নি জেনারেল।

অ্যাটর্নি জেনারেল সাংবাদিকদের বলেন, মীর কাসেমের শুনানীর সময় প্রধান বিচারপতির কাছে বেশ কিছু অসংগতি ধরা পড়ে। এক পর্যায়ে প্রধান বিচারপতি বলেন, মামলা পরিচালনায় সরকার যথেষ্ট টাকা খরচ করছে, কিন্তু সঠিকভাবে মামলা পরিচালনা করা হচ্ছে না বলে মনে হচ্ছে।

প্রধান বিচারপতি মীর কাসেম আলীর মামলাসহ অন্যান্য মামলা পরিচালনায় থাকা দায়িত্বশীলদের প্রতি গভীর অসন্তোস প্রকাশ করে তিনি বলেন, সাঈদীর মামলার শুনানীর সময়ও এ রকম অসংগতি ধরা পড়েছিলো।

মীর কাসেমের মামলায় এরকম দুর্বলতার কারণে রায়ের ক্ষেত্রে কোনো প্রভাব পড়বে কিনা? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, আমার মনে হয় না এতে কোনো প্রভাব পড়বে। তিনি বলেন, আদালত সব সময় চান আরো দক্ষ লোক নিয়োগ এবং নি্ষ্ঠার সাথে যেন কাজ করে।

অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, আদালত মামলা শুনানীর সময় অনেক মন্তব্য করেন এ গুলো মিডিয়ায় আসা ঠিক না। এক প্রশ্নের জবাবে অ্যাটর্নি বলেন, মীর কাসেম আলীর মামলায় রাষ্ট্রপক্ষে যুক্তিতর্ক আগামীকাল শেষ হবে।

অ্যাটর্নি জেনারেল বলেন, চট্রগ্রামের ডালিম হোটেল ছিলো টর্চার ক্যাম্প। এর মুল হোতা ছিলেন মীর কাসেম আলী। এখানে জসিম, টুল্টু সেন ও রনজিত দাশকে হত্যা করা হয়। এ হত্যার বিষয়টি আসামী পক্ষ অস্বীকার করেনি। মীর কাসেম আলীর নেতৃত্বে এসব হত্যাকাণ্ড ঘটেছিলো এটাই আমরা প্রমান করবো।






মন্তব্য চালু নেই