মেইন ম্যেনু

প্রাকৃতিক মূত্রবর্ধক হিসেবে কাজ করে যে খাবারগুলো

কিছু খাবার ও পানীয় ওজন কমাতে সাহায্য করে, দেহ থেকে টক্সিন বাহির করে দেয় এবং রক্তচাপ কমতেও সাহায্য করে। এই খাবারগুলোকেই প্রাকৃতিক ডিইউরেটিক বা মূত্রবর্ধক বলা হয়। এগুলো অনেক বেশি ইউরিন উৎপন্ন হতে সাহায্য করে। মূত্রবর্ধক খাবারগুলোর উপকারিতা অপরিসীম। এরা ব্যথাযুক্ত মূত্রনালীর সংক্রমণ প্রতিরোধ করে এবং শরীরে পানি জমে থাকার সমস্যা বা ইডিমা দূর হতে সাহায্য করে। মৌসুমি জয়েন্টের ব্যথাও দূর করে মূত্রবর্ধক খাবার। প্রাকৃতিক মূত্রবর্ধক কিছু খাবারের কথাই আজ জেনে নিই চলুন।

১। লাউ

লাউ সহজলভ্য ও সুলভ মূল্যের একটি খাবার যা প্রত্যেকেই খেতে পারেন। লাউয়ে প্রচুর পানি থাকে যা দেহের পানির পরিমাণ ঠিক রাখতে সাহায্য করে। ত্বকের আর্দ্রতা রক্ষা করে লাউ। প্রস্রাবের সংক্রমণ জনিত সমস্যা দূর হয় লাউ খেলে। এই সবজি দেহের তাপমারা নিয়ন্ত্রণ করে। লাউয়ে রয়েছে ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস যা দেহের ঘামজনিত লবণের ঘাটতি দূর করে।

২। মৌরি বীজ

হজম সহায়ক ও মুখের দুর্গন্ধ দূর করার পাশাপাশি মৌরি বীজে মূত্রবর্ধক উপাদান ও থাকে। মৌরিবীজ ভেজানো পানি বা শরবত হিসেবে পান করতে পারেন অথবা খাবার খাওয়ার পরে ১ চামচ মৌরি চিবিয়ে খেতে পারেন। এটিও খুব সহজলভ্য ও সস্তা একটি ডিইউরেটিক খাদ্য।

৩। ফুটি বা খরমুজ

ফুটি একটি রসালো ফল যা রক্তচাপের জন্য চমৎকার কাজ করে এবং এটি শক্তিশালী মূত্রবর্ধক হিসেবেও কাজ করে। শরীর থেকে অতিরিক্ত পানি ও টক্সিন দূর করে দিতে সাহায্য করে ফুটি। প্রতিদিন খেলে কিডনি রোগ হওয়া প্রতিরোধ করে।

৪। বার্লি

ওজন কমাতে অনেক বেশি কার্যকর বার্লির পানি। দিল্লির ডায়াবেটা কেয়ার এর চীফ নিউট্রিশনিস্ট তারা মুরালির মতে, বার্লি মাঝারি মানের ডিইউরেটিক যা দেহ থেকে টক্সিন বাহির করে দেয় এবং মূত্রনালির সংক্রমণ প্রতিরোধে সাহায্য করে ঘন ঘন ইউরিনেশনের মাধ্যমে।

৫। ধনেপাতা

আমাদের দেশের বিভিন্ন ধরণের খাবার রান্নায় ব্যবহার করা হয় বহুমুখী গুণ সম্পন্ন ধনিয়াপাতা। এটি প্রাকৃতিক মূত্রবর্ধক হিসেবেও চমৎকার কাজ করে। ধনিয়াপাতা প্রদাহ ও ফুলা কমতে সাহায্য করে এবং রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সহায়তা করে।

৬। গ্রিনটি

গ্রিনটি এর অ্যান্টিওক্সিডেন্টের জন্য বিভিন্ন পুষ্টিবিদই গ্রিনটি পান করার পরামর্শ দিয়ে থাকেন। এটি মেটাবলিজমকে উৎসাহিত করে এবং ডিইউরেটিক হিসেবে কাজ করে যা ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন এবং শরীরের পানি আবদ্ধ হওয়া প্রতিরোধ করে। লেবুর রস ও ডিইউরেটিক হিসেবে কাজ করে এবং গ্রিনটি এর সাথে যুক্ত করলে বেশি উপকৃত হওয়া যায়। গ্রিনটি এর মত ব্ল্যাকটি ও প্রাকৃতিক মূত্রবর্ধক হিসেবে কাজ করে।

৭। রসুন

ক্লিঞ্জিং ও হিলিং এর প্রসঙ্গে অন্য সবজির তুলনায় রসুন অনেক বেশি কার্যকরী। এছাড়াও রসুন একটি শক্তিশালী মূত্রবর্ধক হিসেবেও কাজ করে যা দেহ থেকে অতিরিক্ত তরল বাহির হয়ে যেতে সাহায্য করে। এর সাথে সাথে স্বাস্থ্যকর ইমিউন সিস্টেমকেও উৎসাহিত করে রসুন।

এছাড়াও পটাসিয়াম সমৃদ্ধ খাবার ডিইউরেটিক হিসেবে কাজ করে। উচ্চমাত্রার পটাসিয়াম সমৃদ্ধ কিছু খাবার হচ্ছে- অ্যাভোকাডো, পালং শাক, এপ্রিকট ও কলা।






মন্তব্য চালু নেই