মেইন ম্যেনু

প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার আগেই যারা পর্ন দেখে, এই ভয়ানক পরিণতি তাদের জন্যই অপেক্ষা করছে…

নীল ছবির মোহ! কৌতূহলি মনে উস্কানি দেয় কাম। শরীরের বেড়ে ওঠার সঙ্গেই মনের বার্ধক্য হাতে গরমে নীল ছবি বাড়িয়ে দেয় পারদ। আর পারদ যত চড়ে নেশা ততই বাড়ে। একবার আসক্তি এসে গেলে যা থেকে বেড়িয়ে আসা কার্যত কঠিন। বিশেষত বয়স যখন কম তখন পর্ন এফেক্ট ভয়ানক! অল্প বয়স থেকে পর্ন দেখার অভ্যাস পরবর্তী সময়ে বিরাট সমস্যায় ফেলে দিতে পারে।

প্রথমে পর্নগ্রাফিতে প্রেম তারপর ভায়াগ্রায় আসক্তি, এমনই এক ঘটনায় অশনি সংকেত দেখতে পাচ্ছে মনোবিদরা। বয়স মাত্র ১২। সেই সময় শুরু পর্ন দেখা। যত দিন এগিয়েছে পর্ন-তে প্রেম আরও বাড়ে। শেষে এমন এক পর্যায়ে যায় এই নেশা যে বালক ভায়াগ্রা আসক্ত হয়ে পড়েন। ১২ বছরের বন্ধুকে না বুঝেই ১৫ বছর বয়সী বন্ধু বলেছিল পুরুষত্বহীনতার কথা। কথা হয়েছিল ড্রাগ নিয়েও। তা যে এতটা প্রভাব ফেলবে তা কল্পনাও ছিল না ওই বালকের। গার্লফ্রেন্ডের সঙ্গে যৌনতায় লিপ্ত হওয়ার আগে ৬টি করে বড়ি খেতেন ওই বালক। ফল ভয়ানক। এই বয়সেই যৌবন বিসর্জন দিতে হল ওই যুবককে। বড়ি ছাড়া কোনও ভাবেই সাড়া দেয় না তাঁর লিঙ্গ। ডাক্তারের কাছে যাওয়ার পর তিনি তার ভুল সম্পর্কে অবহিত হন।

মনোবিদরা মনে করেছেন, এইরকম ঘটনা কোনও অস্বাভাবিক কিছু নয়। শিশুমননে যৌনতা নিয়ে কৌতূহল এবং সেক্স এডুকেশনে অনীহা থেকেই এই ধরনের ভয়ানক সমস্যায় পড়ছে টিনএজরা।






মন্তব্য চালু নেই