মেইন ম্যেনু

‘প্রায় ৪ হাজার মানুষের প্রাণ নিয়েছে আইএস’

ইরাক ও সিরিয়ায় আস্তানা গাঁড়ার দুই বছরের মধ্যে তাদের তথাকথিত প্রহসনের বিচারে প্রাণ গেছে প্রায় ৪ হাজার মানুষের। আইএসের বিরুদ্ধে যাওয়ায় এসব মানুষকে শিরচ্ছেদ ও গুলি করে এবং আগুনে পুড়িয়ে মারা হয়েছে।

লন্ডনভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে। সেই সঙ্গে এ মানবাধিকার সংস্থাটি সিরীয় জনগণকে আইএসের অপরাধ ও সহিংসতা থেকে বাঁচানোর জন্য জাতিসংঘের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে।

টাইমস অব ইন্ডিয়া অনলাইনের এক খবরে শনিবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।২০১৪ সালের জুন মাসে ইরাক ও সিরিয়ায় দখলকৃত অঞ্চলে খিলাফত ঘোষণার পর থেকে গত ২২ মাসে আইএস তাদের আইন অমান্য করায় মুখের বিচারে প্রায় ৪ হাজার মানুষকে হত্যা করেছে। শিরচ্ছেদ, গুলি, আগুনে নিক্ষেপ করে এবং বিভিন্ন বর্বর কায়দায় এসব মানুষের প্রাণ নিয়েছে আইএসের জঙ্গিরা।

সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউম্যান রাইটস (এসওএইচআর) জানিয়েছে, সমকামিতা, ধর্মবিদ্বেষ বা স¦ধর্মত্যাগ, মাদক গ্রহণ বা পাচারের অভিযোগ এনে ৪ হাজার ১৪৪ জন বেসামরিক সিরীয়দের হত্যা করেছে আইএস। এর মধ্যে তিন দফায় প্রায় ২ হাজার ২৩০ জনকে হত্যা করা হয়েছে। এদের মধ্যে অধিকাংশ সুন্নি ও কুর্দি মুসলিম।

যুক্তরাজ্যভিত্তিক দ্য ইন্ডিপেনডেন্ট অনলাইন জানিয়েছে, আইএসের হাতে প্রাণ যাওয়া এসব সিরীয়দের মধ্যে নারী ও শিশুরাও রয়েছে। এ ছাড়া সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদের বাহিনীর যোদ্ধা ও বিদ্রোহী গ্রুপের সদস্য ও তাদের পরিবার আইএসের হাতে খুন হয়েছে।

এসওএইচআরের মুখপাত্র জানিয়েছেন, তারা সিরিয়ায় আইএসের অপরাধ ও সহিংসতা থেকে সিরীয় জনগণকে রক্ষা করতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। একই সঙ্গে সিরিয়া সরকারের হাত থেকে জনগণকে বাঁচানোর অনুরোধ করেছে এসওএইচআর।






মন্তব্য চালু নেই