মেইন ম্যেনু

প্রেমের টানে ভারতীয় তরুণীর বাংলাদেশে প্রবেশ, অতপর…

পঞ্চগড়ের আটোয়ারীতে ভারতীয় এক অনুপ্রবেশকারী তরুণীকে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে ভারতে ফেরত পাঠিয়েছে বিজিবি। গত রবিবার (২৭ সেপ্টম্বর) উপজেলার সোনাপাতিলা সীমান্ত ৪১৪ টু এস পিলার সংলগ্ন এই পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন গিরাগাঁও বিজিবি’র নায়েক সুবেদার আব্দুল বাতেন। ভারতের পক্ষে ১৩৯ বি ধনির হাট কোম্পানি কমান্ডার এ.সি. এফ এইচ বিক্রম সিংহ। প্রাপ্ত তথ্যে জানা যায়, উত্তর দিনাজপুর জেলার চপড়া থানার কাবিল বস্তির জৈনক মোশারফ হোসেনের কলেজ পড়ুয়া মেয়ে রেনু পারভীন(১৮) গত ২৩ সেপ্টেম্বর সকালে চা বাগানে কাজ করার কথা বলে ভারতীয় গেট পাস নিয়ে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করে এবং ধামোর ইউনিয়নের বিবাহ রেজিস্ট্রার পানিশাইল গ্রামের খুরশেদ আলীর বাড়িতে আশ্রয় নেয়।

পরে তরুনীর ফুফাতো ভাই ও কথিত প্রেমিক কাওসার আলী বিয়ের প্রলোভন দিয়ে তাকে ঢাকা নিয়ে যায়। তরুণী জানায়, কাওসার ও তার দীর্ঘদিন ধরে মন দেয়া-নেয়া চলছিল। কাওসার তাকে বিয়ে করবে মর্মে সীমান্ত অতিক্রম করে বাংলাদেশে আসতে বলে।

কাওসার রাজশাহীর সাইদুর রহমানের ছেলে এবং খুরশেদ কাজীর ভাগীনা। ওই তরুণী গেট পাস নিয়ে আসার পর ফেরত না যাওয়ায় বিএসএফ চিঠি মারফত বিজিবি কে অবগত করে। বিজিবি অনুসন্ধানে জানতে পারে খুরশেদ কাজী এ ব্যাপারে জড়িত রয়েছে।

বিজিবি খুরশেদ কাজীকে চাপ দিলে গত ২৬ সেপ্টেম্বর রাতে ঢাকা থেকে রেনুকে নিয়ে আসে। এ ব্যাপারে গিরাগাঁও সীমান্ত ফাঁড়ীর নায়েক সুবেদার আব্দুল বাতেন জানায়, মানবিক কারনে মেয়েটিকে জেল হাজতে না পাঠিয়ে বৈঠকের মাধ্যমে ফেরত পাঠানো হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই