মেইন ম্যেনু

প্রেম করে পালিয়ে বিয়ে, ৬ মাস পর আত্মহত্যা

প্রেম করে পালিয়ে বিয়ে করেছিলেন মাত্র ছয় মাস পূর্বে। বিয়ে করে চট্টগ্রাম মহানগরীতে এসে ভাড়া বাসায় সুখের সংসারও পেতেছিলেন দুজন। কিন্তু মাত্র ছয়মাস না পেরুতেই প্রেমিকা স্ত্রীর সঙ্গে তুচ্ছ কারণে ঝগড়া করে ফাঁসিতে ঝুলে আত্মহত্যা করেছেন সাইফুল ইসলাম (২৮) নামের এক যুবক।

বৃহস্পতিবার রাতে চট্টগ্রাম মহানগরীর ঘাট ফরহাদবেগ এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

আত্মহত্যাকারী সাইফুলের স্ত্রী মিশু আক্তার (২২) জানান, রাত ৯টার দিকে তার সঙ্গে সাইফুলের তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে সামান্য কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে তার স্বামী তাকে মারধর করে ঘর থেকে বের করে দিয়ে ভেতর থেকে ঘরের দরজা আটকে দেয়। মিশু ঘরের বাইরে বেশ কিছুক্ষণ অপেক্ষা করার পর দরজা ধাক্কা দিলে ভেতর থেকে দরজা না খোলায় পেছনের দরজা দিয়ে ঘরে ঢুকেন। ঘরে ঢুকে তিনি দেখতে পান সাইফুল গলায় দড়ি লাগিয়ে আত্মহত্যা করে।

মিশু জানান, ওই সময় তিনি সাইফুলের গলার দড়ি কেটে তাড়াতাড়ি নিচে নামান। ততক্ষণে সাইফুল মারা যায়। খবর পেয়ে কোতোয়ালি থানা পুলিশ এসে রাত সাড়ে ১০টার দিকে সাইফুলের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।

কোতোয়ালি থানার এসআই প্রিটন সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মিশু ও সাইফুল ১৪ দিন আগে এই ভাড়া বাসায় উঠেছে। দুজনের বাড়ি চট্টগ্রামর পটিয়া উপজেলায়। সাইফুল ইসলাম পটিয়া উপজেলার শোভনদন্ডী গ্রামের মো. সেলিমের ছেলে। সাইফুল তার মা-বাবার অমতে মিশুকে বিয়ে করে নগরীতে পালিয়ে আসে এবং ভ্যানে করে সবজি বিক্রি করে সংসার শুরু করেছিলো মিশুর সঙ্গে। কিন্তু মা-বাবার কথা মনে পড়লেই সাইফুল তার স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া করতো। বৃহস্পতিবার রাতে এমনই ঝগড়ার এক পর্যায়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। এই ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়ের করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই