মেইন ম্যেনু

প্রেম হচ্ছে ‘রাসায়নিক ঝড়’

মানুষের জীবনে প্রেম আসার শুরু হয় যখন সে নিজ অনুভূতিটা বুঝতে শিখে। বিশেষ করে ছাত্র জীবনে একজন মানুষের প্রেম শুরু হয় প্রাইমারি লেবেল থেকে। তারা তখন প্রেম জিনিসটা প্রথম অনুভব করে। কাউকে ভালবাসতে শিখে। আর সে প্রেম পরে শারীরিক যৌবিক চাহিদা পরিবর্তণের ফলে প্রাপ্ত বয়সে এসে অনেক বেশি জোড়ালো হয়।

যারা প্রেমের অনুভূতির সাথে পরিচিত তাদের যদি এক কথায় বলতে বলা হয় যে প্রেম কি, তাহলে তাদের সবাই মনের মধ্যে চলা হাজার অনুভূতির মধ্যে হাতড়ে বেড়াবে সঠিক শব্দগুলির জন্য। সেই অগোছালো মুহুর্তে যদি তাদের সামনে রাখা হয় এই বাক্যাংশটি এ এক নেশা তবে সাথে সাথে তারা চোখ বন্ধ করে একমত হবে ।

এবং তারা তাদের বক্তব্যের সমর্থনে পাবে আধুনিক বিজ্ঞানকে। বিজ্ঞান বলে : মদ, হেরোইন, চরস ইত্যাদি ধরনের ড্রাগে আসক্ত মানুষ যে ধরনের রাসায়নিক প্রক্রিয়ার কবলে পড়ে; প্রেমে পড়া মানুষও সেই একই ধরনের রাসায়নিক প্রক্রিয়ার মধ্যে পড়ে।

বিজ্ঞানের ভাষায়, প্রেম হলো আমাদের মনের একধরনের রাসায়নিক অবস্থা। যার জন্য একাধারে দায়ী আমাদের Gene এবং আমাদের ছোট থেকে বড় হয়ে ওঠার প্রক্রিয়া, অর্থাৎ আমরা কিভাবে লালিত পালিত হয়েছি। এবং এই প্রেম অত্যন্ত জরুরি আমাদের অস্তিত্ব রক্ষার জন্য।

প্রকৃত প্রেম আমাদের উল্লসিত করে, অনুপ্রানিত করে। প্রেমের কারণে মানুষ এমন অনেক কিছু করে ফেলে বা করতে পারে (অবশ্যই গঠনমূলক কোনো কিছু), যা সাধারনভাবে মানুষ করেনা বা করতে পারেনা। এই বিরল অনুভূতিই মানুষকে আলাদা করেছে সৃষ্টিজগতের অন্যান্য প্রাণী থেকে। তবে আলাদা হোক বা যাই হোক না কেন, শরীর জুড়ে এই যে ‘রাসায়নিক ঝড়’এর আসল উদ্দেশ্য সেই একই প্রজাতির সৃষ্টি নিশ্চিত করা।

প্রেমের ফলে শরীর জুড়ে রাসায়নিকের যে দাপাদাপি চলে তারাই আমাদের অনুপ্রানিত করে পরিবার তৈরী করতে; চাহিদা তৈরী করে বাচ্চা নেবার। এরপর যেই বাচ্চা জন্ম নেয়; এইসব chemical ই তখন আমাদের উদ্বুদ্ধ করে বাচ্চাদের নিয়ে একসাথে থাকার; উদ্দেশ্য সেই একই – প্রজাতির সৃষ্টি যেন চলতে থাকে।

পৃথিবীর বিভিন্ন জায়গায় সামাজিক রীতিনীতি আলাদা হবার কারণে প্রেম, ভালবাসার প্রকাশ আলাদা হয়। আলাদা হয় পরিবারের গঠন, বন্ধনের প্রকৃতি | কিন্তু সবার শরীরে এর জোয়ার ভাঁটার টান অনিবার্য।

প্রেম স্রষ্টার সৃষ্টির অন্যতম এক। প্রেমের অনুভূতি স্বর্গীয় সুখ। এটি স্বর্গীয় দান। পৃথিবীতে সকল প্রাণীর মনে প্রেম থাকে। পশুদের মনেও প্রেম আছে বলে তারাও পৃথিবীর শুরু হতে প্রেম, যৌন লিলায় মেতে আছে।

মানুষের মনে এর বলার অপেক্ষাই রাখেনা। মানুষের মনের প্রকৃত প্রেম আসে প্রাকৃতিক রূপে। মানুষের মনের প্রেমের পরীসর সঠিকভাবে পরিমাপ করা খুবই কঠিণ কাজ। মানুষের প্রেম পৃথিবীর সব জিনিসের প্রতি হতে পারে।

কিন্তু তার পরও বিশেষ করে মানব প্রেম বলতে আমরা একটা মানব আর একটা মানবীর মাঝে প্রেমকে বুঝি। আমি এখানে মানব বলতে এক ছেলে আর মানবী বলতে এক মেয়ে কথা বলছি। মানব জীবনে প্রেম যখন তখন আসতে পারে। বড়দের মনে প্রেম আসবে আর ছোটদের মনে প্রেম আসবেনা এমন কোন কথা নেই। ছোটদের মনে ও প্রেম আসতে পারে।






মন্তব্য চালু নেই