মেইন ম্যেনু

ফখরুলের জামিন আবেদন সকালে প্রত্যাখ্যান, বিকেলে মঞ্জুর

পল্টন থানার নাশকতার দুই মামলায় বিএনপির সদ্য দায়িত্বপ্রাপ্ত ভারমুক্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের জামিন পুনর্বিবেচনার আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত। এদিন সকালে আদালত এ আবেদন প্রত্যাখ্যান করেছিলেন।

বুধবার (৩০ মার্চ) বিকেল ৪টায় মির্জা ফখরুলের পক্ষে তার আইনজীবী জামিন আবেদন করলে আবেদনের শুনানি শেষে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট গোলাম নবী এ আদেশ দেন।

এ সময় মির্জা ফখরুলের পক্ষে জামিন আবেদন দাখিল করেন আইনজীবী জয়নুল আবেদিন মেজবাহ। সঙ্গে ছিলেন সানাউল্লাহ মিয়া ও খুরশেদ আলম প্রমুখ।

এর আগে বিএনপির সদ্য ভারমুক্ত হওয়া মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে পল্টন থানার নাশকতার দুই মামলায় জামিন নামঞ্জুর করে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

বুধবার নাশকতার তিন মামলায় মির্জা ফখরুল ঢাকার সিএমএম আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে একটি মামলায় জামিন মঞ্জুর করলেও অপর দুই মামলায় জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে তাকে জেলহাজতে পাঠানোর আদেশ দেন মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট গোলাম নবী।

মির্জা ফখরুলের অন্যতম আইনজীবী জয়নুল আবেদিন মেজবাহ সাংবাদিকদের জানান, পল্টন থানার নাশকতার ৪/১-২০১৫ নম্বর মামলায় জামিন দিলেও ৫/১-২০১৫ ও ৭/১-২০১৫ নম্বর মামলায় তা নামঞ্জুর করেছেন আদালত।

এদিকে গত ২৯ ফেব্রুয়ারি মির্জা ফখরুলকে ১৫ দিনের মধ্যে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দিয়েছিলেন প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন ৫ সদস্যের আপিল বিভাগ।

গত বছরের ৫ জানুয়ারি সরকার বিরোধী হরতাল অবরোধে ২০ দলীয় জোটের আন্দোলনের সময় পল্টন থানার নাশকতার ওই তিন মামলায় মির্জা ফখরুলকে সুপ্রিমকোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেন।

মির্জা ফখরুলের ওই জামিনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আপিলে গেলে রুল নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত জামিন বহাল রাখেন আপিল বিভাগ। একই সাথে মেয়াদ শেষে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণ করতে নির্দেশ দেন। এছাড়াও হাইকোর্টকে রুলটি নিষ্পত্তি করতে বলেন। পরে হাইকোর্ট গত বছরের ২৪ নভেম্বর রুল নিষ্পত্তি করে ওই তিন মামলায় মির্জা ফখরুলকে তিন মাসের জামিন দেন।

এছাড়া গত ১৮ ফেব্রুয়ারি সিলেটে বিচার বিভাগ নিয়ে মির্জা ফখরুলের মন্তব্য দৃষ্টিগোচরে আনলে তার কাছে ব্যাখ্যা চান পূর্ণাঙ্গ আপিল বেঞ্চ। এরপর ২৯ ফেব্রুয়ারি মির্জা ফখরুল ব্যাখ্যাসহ জামিনের আবেদন করেন আপিল বিভাগে। শুনানি শেষে ১৫ দিনের মধ্যে তাকে নিম্ন আদালতে আত্মসমর্পণের নির্দেশ দেন দেয়া হয়। ওই নির্দেশ অনুযায়ী আজ (বুধবার) ঢাকার সিএমএম আদালতে আত্মসমর্পণ করেন মির্জা ফখরুল।

এর আগে সকালে অ্যাডভোকেট রুহুল কবীর রিজভী আহমেদ এক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের পূর্ণাঙ্গ মহাসচিব হওয়ার কথা জানান।






মন্তব্য চালু নেই