মেইন ম্যেনু

ফাঁসির মহড়া সম্পন্ন : প্রস্তুত ৩ জল্লাদ

মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত মীর কাসেম আলীর ফাঁসি কার্যকরে চূড়ান্ত মহড়া সম্পন্ন হয়েছে। শনিবার দুপুরে কাশিমপুর কেন্দ্রীয় কারাগার-২ এর ফাঁসির মঞ্চে তৃতীয় দফা ও শেষবারের মতো মহড়া সম্পন্ন করা হয়। কারা সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, মীর কাসেম আলীর ফাঁসি কার্যকরে তিন জল্লাদকে প্রস্তুত রাখা হয়েছে। জল্লাদ দীন ইসলাম, শাহজাহান ও শাহীন ফাঁসি কার্যকরের জন্য প্রস্তুত। অপেক্ষমাণ তালিকায় রয়েছেন আরো দুই জল্লাদ।

সূত্র আরো জানায়, ফাঁসি কার্যকর কে করবেন এটা ফাঁসির আগ মুহূর্তেই ঠিক করা হবে। তবে এদের মধ্যে জল্লাদ শাহজাহানের নেতৃত্বে ফাঁসি কার্যকরের সম্ভাবনা বেশি। বৃহস্পতি ও শুক্রবারের ফাঁসি কার্যকরের মহড়ায় তারা তিনজনই উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া কারারক্ষীদের একটি দল উপস্থিত ছিল।

এদিকে বিকেলে মীর কাসেমের পরিবারের সদস্যরা ছয়টি গাড়িতে ৪৫ থেকে ৪৭ জন তার সঙ্গে দেখা করতে কারাগারে পৌঁছেছেন। তবে ভিতরে ঢোকার জন্য প্রথমে ২৫ জন অনুমিত পান। পর্যায়ক্রমে পরিবারের ৩৮ জন সদস্য মীর কাসেমের সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পেয়েছেন বলে জানা গেছে।

এর আগে শুক্রবার দুপুরে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন না করার সিদ্ধান্ত জানানোর পর থেকেই শুরু হয়েছে ফাঁসি কার্যকরের প্রস্তুতি।

উল্লেখ্য, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মীর কাসেমের মৃত্যুদণ্ড দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। ওই রায়ের বিরুদ্ধে রিভিউ করলে তাও গত মঙ্গলবার খারিজ করে দেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগের পাঁচ সদস্যের বেঞ্চ রিভিউ খারিজ করে দেন। বেঞ্চের অপর সদস্যরা হলেন- বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন, বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী, বিচারপতি মির্জা হোসেইন হায়দার ও বিচারপতি মোহাম্মদ বজলুর রহমান।






মন্তব্য চালু নেই