মেইন ম্যেনু

ফাইল রাষ্ট্রপতির কাছে, যেকোনো সময় গেজেট প্রকাশ

জাতীয় বেতনকাঠামোর (পে-স্কেল) গেজেটের ফাইল অনুমোদনের জন্য রাষ্ট্রপতির কাছে গেছে। যেকোনো সময় এই গেজেট প্রকাশ করা হবে। আজ রবিবার অর্থ মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল একটি সূ্ত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এর আগে গেজেট প্রকাশের আগে ভেটিংয়ের জন্য সম্প্রতি এটি আইনমন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। আইনমন্ত্রণালয় তা পরীক্ষা নীরিক্ষা শেষে এটি আবার অর্থমন্ত্রণালয়ে ফেরত পাঠায়। অর্থমন্ত্রণালয় থেকে তা যায় রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ে।

এ মাসে গেজেট প্রকাশ হলে আগামী মাসেই নতুন বেতন কাঠামোতে ‘বর্ধিত বেতন’ পাবেন সরকারি চাকরিজীবীরা। তবে যখনই এটা চালু হোক না কেন কার্যকর হবে গত জুলাই থেকেই।

গত বছরের ডিসেম্বরে পে কমিশনের মূল প্রতিবেদন সরকারের কাছে জমা দেওয়ার পর ৭ সেপ্টেম্বর মন্ত্রিসভার বৈঠকে সরকারি চাকরিজীবীদের নতুন পে স্কেল অনুমোদন দেওয়া হয়। ওই দিন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোশাররাফ হোসাইন ভূইঞা সংবাদ সম্মেলনে বলেছিলেন, ১ জুলাই থেকেই নতুন বেতন কাঠামো কার্যকরের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। তবে তা বাস্তবায়ন করতে প্রজ্ঞাপন জারি করতে হবে। এতে দেড় থেকে দুই মাস সময় লাগতে পারে। মন্ত্রিসভার সেই সিদ্ধান্ত কার্যকর করতে এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হচ্ছে।

নতুন বেতন কাঠামোতে মাসিক ‘মূল বেতন’ সর্বোচ্চ ৭৮ হাজার টাকা এবং সর্বনিম্ন ৮ হাজার ২৫০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে এখন শুধু ‘মূল বেতন’ বাড়বে। ভাতা বাড়বে আগামী বছরের জুলাই থেকে।

জানা গেছে, সরকারি চাকরিজীবীরা এখন মূল বেতনের সঙ্গে চিকিৎসা ভাতা পান ৭০০ টাকা। এই ভাতা বাড়িয়ে ১৫০০ টাকা করা হয়েছে। যাতায়াত ভাতা ১৫০ টাকা থেকে বাড়িয়ে দ্ধিগুণ করা হয়েছে। শিক্ষা ভাতা ৩০০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। বর্তমানে কোনো সরকারি চাকরিজীবী পিআরএলে (অবসর-পূর্ব ছুটি) গেলে এক সঙ্গে ১২ মাসের সমপরিমাণ মূল বেতন পান। নতুন স্কেলে ১৮ মাসের সমপরিমাণ ‘মূল বেতন’ পাবেন। খসড়া প্রজ্ঞাপনে এসব বিষয়ে উল্লেখ করা হয়েছে। এ ছাড়া নববর্ষে বৈশাখী ভাতার কথা উল্লেখ থাকছে প্রজ্ঞাপনে।






মন্তব্য চালু নেই