মেইন ম্যেনু

ফিফা কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ইন্টারপোলের রেড অ্যালার্ট

ফিফার নির্বাহী জ্যাক ওয়ার্নার ও নিকোলাস লিওজসহ ছয়জন স্পোর্টস মার্কেটিং নির্বাহী কর্মকর্তার বিরুদ্ধে রেড অ্যালার্ট জারি করেছে পুলিশের আন্তর্জাতিক সংস্থা ইন্টারপোল। মূলত যুক্তরাষ্ট্রের নির্দেশেই এই রেড অ্যালার্ট জারি করেছে ইন্টারপোল। ধান্দাবাজির ষড়যন্ত্র ও দুর্নীতির অভিযোগে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

ওয়ার্নার (ত্রিনিদাদ এন্ড টোবাগোর সাবেক জাতীয় খেলোয়াড় এবং ফিফার ভাইস প্রেসিডেন্ট) ও লিওজের (কনমেবল সভাপতি ও ফিফার নির্বাহী কমিটির সদস্য) বিরুদ্ধে সাম্প্রতিক সময়ে ফুটবলের নানা বিতর্ক ও দুর্নীতির সঙ্গে যুক্ত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘যুক্তরাষ্ট্রের অনুরোধে ইন্টারপোল ফিফার ছয় কর্মকর্তার বিরুদ্ধে রেড অ্যালার্ট জারি করেছে। পাশাপাশি তাদেরকে ‘ওয়ানটেড’ বলেও উল্লেখ করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ধান্দাবাজির ষড়যন্ত্র ও দুর্নীতির অভিযোগ থাকার কারণেই এই অ্যালার্ট জারি করা হয়েছে।’

গেল সপ্তাহে যুক্তরাষ্ট্রের বিচার বিভাগ ফিফার যে ১৪জন কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছিল তাদের একজন হলেন ওয়ার্নার। গেল বুধবার এই অভিযোগের সূত্র ধরে আমেরিকা ও সুইস কর্তৃপক্ষ ফিফার সাতজন কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করে। চলতি সপ্তাহে প্যারাগুয়েতে দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত থাকার কারণে লিওজকে হাতেনাতে গ্রেফতার করা হয়।

এই দুজন ছাড়া বাকি চারজন হলেন ফিফার করপোরেট মার্কেটিং নির্বাহী। তারা হলেন -আর্জেন্টিনার আলেজানদ্রো বুর্জাকো, হুগে জিনকিস, মারিয়ানো জিনকিস ও হোসে মারগুলিস।

রেড অ্যালার্টের মাধ্যমে ইন্টারপোল তার সদস্য দেশের কাছে তথ্য পৌঁছে দেয় যে, এই ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। পাশাপাশি তারা কোথায় অবস্থান করছেন সে বিষয়েও সদস্য দেশের কাছে জানতে চাওয়া হয়।

স্থানীয় পুলিশের সহায়তায় অভিযুক্তদের চিহ্নিত করা, তাদের অবস্থান সনাক্ত করা ও গ্রেফতারের বিষয়ে কাজ করে ইন্টারপোল। রেড অ্যালার্ট হচ্ছে একটি আন্তর্জাতিক গ্রেফতারি পরোয়ানা। তবে ইন্টারপোল তাদের কোনো সদস্য দেশকে এই ব্যক্তিদের গ্রেফতার করতে বাধ্য করতে পারবে না।






মন্তব্য চালু নেই