মেইন ম্যেনু

ফের ধাক্কা খেলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প

আদালতে আবার বড় ধাক্কা খেলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। কার্যকর হওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের দ্বিতীয় অভিবাসন ফতোয়াটির ওপরেও স্থগিতাদেশ দিল মার্কিন আদালত। এর ফলে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের দ্বিতীয় অভিবাসন ফতোয়াটিও আর কার্যকর হবে না গোটা আমেরিকায়।

বুধবার হাওয়াইয়ের ডিস্ট্রিক্ট জজ ডেরিক ওয়াটসন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের দ্বিতীয় অভিবাসন ফতোয়াটির ওপর স্থগিতাদেশ জারি করে বলেছেন, ‘‘ওই আইনের ফলে যদি হাওয়াইয়ে ছাত্রছাত্রী ও পর্যটক আসার ওপর বিধিনিষেধ জারি হয়, তা হলে অর্থনৈতিক ভাবে দুর্বল হয়ে পড়বে হাওয়াই। শুধু তাই নয় ওই আইন হয়ে উঠবে মার্কিন সংবিধানের ধর্মবৈষম্য বিরোধী প্রথম সংশোধনীটিরও পরিপন্থী। ফলে, তা আমেরিকার সম্মানে আঘাত দেবে। নষ্ট হবে মার্কিন সংবিধানের ভাবমূর্তি। তাই আমেরিকার কোনও সীমান্ত বা বন্দরে বিদেশিদের ভিসা দেওয়ার ক্ষেত্রে ওই অভিবাসন ফতোয়াটি বিবেচ্য হবে না।’’ শুধু জাতীয় নিরাপত্তার কথা ভেবেই ট্রাম্প প্রশাসন ওই আইন জারি করার উদ্যোগ নিয়েছেন কি না, তাঁর রায় দিতে গিয়ে সেই প্রশ্নও তুলেছেন হাওয়াইয়ের ডিস্ট্রিক্ট জজ।

রায় দিতে গিয়ে হাওয়াইয়ের ডিস্ট্রিক্ট জজ ডেরিক ওয়াটসন বুধবার এও বলেছেন, ‘‘আমার মনে হয়েছে, সরকারের ভাবনাচিন্তার মধ্যে কিছু ত্রুটি থেকে যাচ্ছে। কোনও এক বা দু’জনের কাজকর্মের জন্য বিশেষ একটি জনগোষ্ঠী প্রশাসনের চক্ষুশূল হয়ে পড়লে তার মধ্যে কিছু মৌলিক ভুলভ্রান্তি থেকে যায়।’’

ক্ষমতাসীন হওয়ার পরপরই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ৭টি দেশের নাগরিকদের আমেরিকায় প্রবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সেই প্রথম অভিবাসন ফতোয়াটির ওপর একটি মার্কিন আদালত স্থগিতাদেশ দিলে ইরাককে তালিকা থেকে বাদ দিয়ে দ্বিতীয় অভিবাসন ফতোয়াটি তৈরি করে ট্রাম্প প্রশাসন। দ্বিতীয় অভিবাসন ফতোয়াটির তীব্র বিরোধিতা করে তার ওপর স্থগিতাদেশ জারির আর্জি জানিয়ে মেরিল্যান্ড, ওয়াশিংটন ও হাওয়াইয়ের ফেডেরাল কোর্টে মামলা দায়ের করা হয়। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের দ্বিতীয় অভিবাসন ফতোয়াটিকে রোখার চেষ্টা শুরু হয়ে যায় আরও ৬টি মার্কিন স্টেটে।






মন্তব্য চালু নেই