মেইন ম্যেনু

ফের হামলার হুমকি: ৩ তরুণের একজন ক্লোজ-আপ প্রতিযোগী! (ভিডিও)

বাংলাদেশে ফের হামলার হুমকি দিয়ে তথাকথিত ইসলামিক স্টেট বা দায়েশ এর বরাত দিয়ে যে ভিডিও বিতর্কিত সাইট ইনটেলিজেন্স গ্রুপ প্রকাশ করেছে; সে ভিডিও’র তিন তরুণের মধ্যে দুজনের পরিচয় উঠে আসছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। বন্ধু-বান্ধব বা পরিচিতরা তিনজনের মধ্যে দুইজনের পরিচয় নিশ্চিত করার দাবি করছেন। তবে একজনের মুখমণ্ডল ঢাকা থাকায় তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

ভিডিওতে তিন তরুণ বাংলায় এবং ইংরেজিতে কথা বলছে। ভিডিওটি কোথায় ধারণ করা সে সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া যায়নি, তবে সাইটের ভাষ্য এটি দায়েশের কথিত রাজধানী সিরিয়ার রাজধানী রাকা থেকে প্রকাশ করা হয়েছে।

ভিডিও’র প্রথম তরুণের পরিচিতজন ও বন্ধুরা ফেসবুকে তার পরিচয় প্রকাশ করেছেন। ফেসবুকে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, প্রথম তরুণ আগে বাংলাদেশের বেসরকারি মোবাইল ফোন কোম্পানি গ্রামীণফোনে চাকরি করেছে। বাংলাদেশের একটি বেসরকারি টেলিভিশনে প্রচারিত সঙ্গীত বিষয়ক রিয়েলিটি-শো ‘ক্লোজআপ ওয়ানের’ প্রথম সিজনের মাধ্যমে সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে আত্মপ্রকাশ ঘটেছিল তার। ক্লোজআপ ওয়ানে তার গাওয়া ‘মন শুধু মন ছুঁয়েছে এ গানটি সেই সময় শ্রোতাদের মন ছুঁয়ে যায়। সেই গানটির ভিডিও ইউটিউবে এখনও রয়েছে। (ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন)। ভিডিওটির শেয়ার দিচ্ছেন পরিচিতরা।

ভিডিও’র তৃতীয় তরুণের পরিচিতজন ও বন্ধুরা ফেসবুকে দাবি করছেন, তৃতীয় তরুণ ২০১৪ সাল থেকে নিখোঁজ। সে ছিল বিআইএস এর ইংরেজি ভার্সনের সাবেক ছাত্র। নিখোঁজ হওয়ার আগে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইবিএ বিভাগের শিক্ষার্থী ছিলেন।

কোনো একটি ব্যস্ততম রাস্তায় ধারণ করা ভিডিওতে দেখা যায়, প্রথম তরুণ বাংলা ও ইংরেজিতে বক্তব্য রাখছে। সে বলছে, গুলশানের হামলা ছিল ঝলক মাত্র। এমন ঘটনা আরো ঘটবে।

ভিডিওতে এক তরুণকে বলতে শোনা যায়, ‘শেখ আদনানির’ নির্দেশে তারা ‘খ্রিস্টান, ইহুদি ক্রসেডার ও তাদের মিত্রদের’ বিরুদ্ধে এ যুদ্ধ করছে এবং তা কোনোভাবেই ‘কৌতুক নয়’।

গত ১ জুলাই রাতে গুলশানের আর্টিসান রেস্তোরায় চালানো ভয়াবহ সেই হামলার প্রশংসাও করা হয় ওই ভিডিওতে। ভয়াবহ সেই হামলায় প্রাণ হারান ১৭ বিদেশিসহ ২২ জন। এর মধ্যে দুইজন পুলিশ অফিসার রয়েছেন।

হামলার পরপরই দায়েশ তার পত্রিকা আমাকে হামলাকারী ৫ তরুণের ছবি প্রকাশ করে, যারা সবাই ১১ ঘণ্টার জিম্মিকাণ্ডের পর শনিবার সকালে সেনাবাহিনীর বীরোচিত কমান্ডো অভিযানে নিহত হন।

অবশ্য স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, ওই হামলায় জড়িতরা বাংলাদেশের বিভিন্ন নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠনের সদস্য।






মন্তব্য চালু নেই