মেইন ম্যেনু

ফেসবুকের সাহায্যে ১৫ বছর পর মা ফিরে পেলেন ছেলেকে

এমন কিছু ঘটনা ঘটে যা রূপকথাকে হার মানায়। এমনই এক ঘটনার প্রমাণ হলো এক ছেলের ক্ষেত্রে। ফেসবুকের কল্যাণে ১৫ বছর পর ছেলেকে ফিরে পেলেন যুক্তরাষ্ট্রের এক মা।

জনাথন নামে ওই ছেলের মা হোপ হল্যান্ড যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের বাসিন্দা। জনাথনের বয়স যখন তিন বছর তখন তাকে নিয়ে মেক্সিকোতে চলে যান হল্যান্ডের স্বামী।

এরপর আর কোনো দিন তাদের সঙ্গে যোগাযোগ করেননি। এত কম বয়সে মায়ের কাছ থেকে দূরে চলে যাওয়া ছেলের মায়ের স্মৃতি মনে থাকার কথা নয়। মায়ের কোনো স্মৃতি মনেও করতে পারেনি।

অবশ্য জনাথনকে ফিরে পাওয়ার আশা কোনোদিনই ছেড়ে দেননি জন্মধাত্রিণী মা। এ জন্য জনাথন নামে ছেলের বয়সী অনেককেই ফেসবুক ‘ফ্রেন্ডলিস্টে’ রেখেছিলেন হল্যান্ড। তার আশা ছিল, জনাথনদের কোনো একজনই হবে তার ছেলে।

নিজের সঙ্গে থাকা ছোটবেলার সেই ছবি একদিন ফেসবুকে পোস্ট করলে তা নজর কাড়ে মায়ের। ছবিটিতে জনাথন ও তার বড় ভাই জ্যাকবকে খালি গায়ে একটি বাথটাবে খেলতে দেখা যায়। এ বিষয়ে জনাথনের কাছ থেকে জানার পর হল্যান্ড বুঝতে পারেন, এই‌ জনাথনই তার হারিয়ে যাওয়া ‘সাত রাজার ধন’।

জনাথন ইংরেজি না জানায় তার সঙ্গে যোগাযোগে কিছুটা বিপাকে পড়তে হয় হল্যান্ডকে। আঠার বছর বয়সী জনাথন তখন মায়ের কাছ থেকে হাজারো মাইল দূরে মেক্সিকোতে অবস্থান করছিলেন।

স্কুলজীবনে শেখা স্পেনিশ ভাষা এক্ষেত্রে কাজে লাগে হল্যান্ডের। ফেসবুকে নিজের এক বন্ধুর মাধ্যমে কয়েকবার মেসেজ আদান-প্রদানের মাধ্যমে জনাথনের সঙ্গে কথা বলার সুযোগ হয় হল্যান্ডের।

জনাথনের কাছ থেকে সবকিছু জেনে হল্যান্ড নিশ্চিত হন যে, এই জনাথনই তার দুই ছেলের ছোটটি। এতেও ছেলের সঙ্গে দেখা করা সহজ ছিল না হল্যান্ডের। বয়স বিবেচনায় জনাথনকে একা যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার অনুমতি দেয়া হয়নি। অবশেষে সেই বাধা পার করে ১৫ বছর পর দেখা হয় ছেলের সঙ্গে।

সূত্র : ডেইলি নিউজ






মন্তব্য চালু নেই