মেইন ম্যেনু

ফেসবুকে অসংখ্য শেয়ার হওয়া এই ছবিটিতে আসলে কী আছে?

ব্রাজিলিয়ান নাগরিক নেলসন ফেলিপ তার ফেসবুক পেজে একটি ছবি শেয়ার করেন। তার শেয়ারের পর আরো হাজার বার ছবিটি শেয়ার করা হয়। ছবিটির এতটা জনপ্রিয়তার কারণ ছিলো এর সঙ্গে থাকা লেখাটি। কী সেই লেখা?

গুগলে চাকরি করা এই ভদ্রলোক বলেন, ‘আমি কোনো কিছুর দ্বারা প্রভাবিত হয়ে বলছি না। প্রত্যেকেরই ব্যক্তিগত স্বাধীনতা রয়েছে কিন্তু এরকম দৃশ্য আসলে আমি আশা করি না। ব্যক্তিগত সময়ে মানুষ যা খুশি তাই করতে পারে। কিন্তু এটি যখন জনগণকে সম্পৃক্ত করে আমি তখনই চিন্তিত হয়ে পড়ি। আর এই দৃশ্যটি আমার কাছে স্বাভাবিক মনে হয়নি ‘

‘তারা সামাজিক রীতিনীতিকে চ্যালেঞ্জ করছে যেটা বিপদজনক হতে পারে। যদি কোনো দুর্ঘটনা ঘটতো, কেউ মারা যেত তাহলে আমার কাকে দোষ দিতাম?’ প্রশ্ন করেন ফেলিপ।

কোনো শিশু যদি এই দৃশ্যটি দেখতো তাহলে কি হত?’ আবারও প্রশ্ন করেন ফেলিপ।

এরপরই ফেলিপ বললেন আসল ঘটনা-

তিনি বলেন ‘শিশুরা মনে করবে রেললাইনের পাশে হলুদ সীমারেখায় দাঁড়িয়ে থাকা যেন খুবই স্বাভাবিক ব্যাপার।
তাই এই লোকটির মত কোনো কাজ করা যাবে না। মেয়েগুলিকে দেখুন কত সুন্দর নিয়ম মেনে দাঁড়িয়ে আছে। যখন ট্রেন আসবে এবং প্ল্যাটফর্মে এসে থামবে তবে হলুদ সীমারেখায় পা রাখা যেতে পারে।’

সত্যিকার অর্থে রেল দুর্ঘটনা এড়াতে এটি ছিল ফেলিপের একটি সচেতনতামূলক পোস্ট।






মন্তব্য চালু নেই