মেইন ম্যেনু

ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ছে ভাইরাস : ক্লিক করে ফেললে যা করবেন

ফেসবুকে একটি ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে। ভাইরাসটিতে ক্লিক করার মাধ্যমেই ছড়িয়ে পড়বে বন্ধুদের কাছেও।

ফেসবুকে পারসোন্যাল/ব্যক্তিগত ইনবক্সে আপনার নাম ও ছবি ব্যবহার করে কেউ ভিডিও ম্যাসেজ পাঠালে দয়া করে তাতে ক্লিক করবেন না।

ফেসবুকে ক্রমাগত ছড়িয়ে পড়ছে একটি ভাইরাস। ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের কাছ থেকে আসা ভিডিও লিংকের মাধ্যমে ছড়াচ্ছে ‘এই ভাইরাস। এই ভাইরাসটিকে বলা হচ্ছে ‘প্লেগ’ যা ফেসবুক বন্ধুদের বার্তার মাধ্যমে একজন থেকে আরেকজনের কাছে ছড়াচ্ছে। এই ভাইরাসে ইংরেজিতে একটি বার্তায় ভিডিও দেখার জন্য বলা হয়। এতে যাকে ভিডিও দেখতে বলা হয় সেই ব্যবহারকারীর প্রোফাইল ছবি ও নাম যুক্ত থাকে। ফলে অনেকে সহজেই এই জালে পা দিয়ে ফেলেন।

অনেকেই ভুল করে ক্লিক করে বসেন এই ভিডিওতে। যাতে ভাইরাসটি স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধু তালিকায় থাকা সব বন্ধুদের কাছে ছড়িয়ে পড়ে। এই লিংকটিতে ক্লিক না করার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা।

মাল্টি লেভেল মার্কেটিংয়ে যেমন আপনাকে দুই জনকে যুক্ত করতে হয়। তেমনি এটিতে ক্লিক করার মাধ্যমে পাঁচ জনের কাছে পৌঁছে যাচ্ছে।

সমস্যার শুরু হয় ট্যাগিং থেকে। আপনি হুট করেই দেখলেন আপনার নোটিফিকেশনে এসেছে আপনার কোনও একজন বন্ধু আপনাকে ট্যাগ করে কিছু একটা পোস্ট দিয়েছে। পোস্টটিতে বন্ধুর প্রোফাইল ছবি দেখে আপনিও আগ্রহী হয়ে যাচাই বাছাই না করেই ক্লিক করলেন আর যখনই আপনি ক্লিক করবেন তখনই হারিয়ে যাবে নোটিফিকেশনটি। কিন্তু আপনার বন্ধু তালিকার মানুষদের নোটিফিকেশনে চলে যাবে।
পোস্টে থাকবে আপনার প্রোফাইল ছবি। প্রতিবারে পাঁচজন করে ট্যাগ করে এই পোস্ট আপনার টাইমলাইনে পোস্ট হতে থাকবে। সেখান থেকে যদি কেউ একজনও ক্লিক করে তাহলে তার বন্ধু তালিকায় ছড়িয়ে পড়বে এই ভাইরাস।

পোস্টটি পর্যালোচনা করে দেখা যায় পোস্টটি ‘কাহবালতি হাবেরি ডট কম’ নামে একটি ওয়েবসাইটের লিঙ্ক বহন করে। এটি তার্কিশ ভাষা। যার অর্থ ব্রেকফাস্ট নিউজ বা সকালের খবর। তাই ধারনা করা হচ্ছে এই ভাইসারটি তুরস্ক থেকে ছড়ানো হচ্ছে। তবে গুগলে সার্স করে সাইটটির কোনও অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়নি।

ক্লিক করে ফেললে কী করবেন?
যদি দুর্ঘটনাবসত আপনি এমন লিঙ্কে ক্লিক করেই ফেলেন তাহলে প্রথমে আপনি আপনার ব্রাউজারের ক্যাশ, কুকি, হিস্টোরি সব ডিলিট করে ফেলবেন। এমন ভাইরাস মূলত আপনার এসব কিছু ব্যবহার করে আপনার মূল্যবান তথ্য চুরি করে নেয়। এপর ফেসবুকের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে নিন। শেষ ধাপে আপনার কমপিউটারের কোনও ক্ষতি হলো কী না তা চেক ও মুক্ত করতে একটি ভালো অ্যান্টি ভাইরাস দিয়ে পুরো কমপিউটার চেক করান।

ভাইরাসটি যেভাবে দূর করবেন:
এই ভাইরাসটি কোন সফটওয়্যার প্রোগ্রাম নয়। এটি শুধু মাত্র একটি স্ক্রিপ্ট। অনেকেই এই ভাইরাস দূর করতে পুরো ব্রাউজার ডিলিট করে দেন। এই ভাইরাসটি দূর করতে শুধু এক্সটেনশন পরিস্কার করলেও চলবে। এ ছাড়াও ব্রাউজারে টেম্পরারি ফাইল, কুকিস মুছে দিলেও এই ভাইরাসটি দূর করা যাবে। যদি এক্সটেনশন মুছতে না পারেন তবে ব্রাউজার ডিলিট করে আবার রিইনস্টল করতে পারেন। এ ছাড়াও ট্রেন্ড মাইক্রো অ্যান্টিভাইরাস দিয়ে কম্পিউটার স্ক্যান করেও এই ভাইরাস দূর করা যাবে।

এমন ভাইরাসের আক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে:
ফেসবুকের প্রাইভেসি অপশনে যান, ট্যাগিং ম্যানেজমেন্ট থেকে আপনাকে কে ট্যাগ করতে পারবে সেটিকে ‘অনলি মি’ করে দিন। এতে আপনাকে আর কেউ কিছু ট্যাগ করতে পারবে না। অবশ্যই ইন্টারনেট সিকিউরিটি অ্যান্টি-ভাইরাস ব্যবহার করুন।

যেসব পোস্টে লিঙ্ক উল্লেখ থাকে না সেগুলোতে ক্লিক করা থেকে বিরত থাকুন।






মন্তব্য চালু নেই