মেইন ম্যেনু

ফ্রান্সে ট্রাক হামলা : খালেদা জিয়ার শোক ও নিন্দা

ফ্রান্সে জনতার ওপর দ্রুতগতির ট্রাক তুলে দিয়ে ৮৪ জনকে হত্যার ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। তিনি এই বর্বরোচিত ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

আজ শুক্রবার এক শোকবার্তায় বিএনপির চেয়ারপারসন বলেন, ফ্রান্সের দক্ষিণাঞ্চলীয় নিস শহরে বাস্তিল দিবসের উৎসবে জড়ো হওয়া জনতার ওপর ট্রাক চালিয়ে মানুষ হত্যা করার ঘটনা শুধু অমানবিকই নয়, কাপুরুষোচিত।

এ হামলার ঘটনায় ধিক্কার ও নিন্দা জানিয়ে খালেদা জিয়া বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী এ ধরনের নির্মম ও পৈশাচিক হামলা এখনই প্রতিরোধ করতে না পারলে সারা বিশ্বই হুমকির মুখে পড়বে। এ ধরনের হামলাকারীরা কাপুরুষ, তারা অন্যের স্বাধীন কর্মকাণ্ডকে শ্রদ্ধা করে না। তাই তারা মানুষ হত্যার উল্লাসে মেতে ওঠে।’

বিশ্বব্যাপী চলমান আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদকে চূড়ান্ত নির্মূল করতে না পারলে মানুষের সব অর্জন সন্ত্রাসবাদের ছোবলে নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে মন্তব্য করে বিএনপির চেয়ারপারসন বলেন, ‘সংঘটিত মর্মান্তিক ও হৃদয়বিদারক ঘটনা বাংলাদেশের জনগণ এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলের (বিএনপি) নেতাকর্মীদের গভীরভাবে উদ্বিগ্ন করে তুলেছে। এই হৃদয়বিদারক ঘটনায় আমি ফ্রান্সের শোকাহত জনগণ ও সরকারকে সহমর্মিতা জ্ঞাপন করছি।’

সেই সঙ্গে এ নৃশংস ঘটনায় প্রকৃত দায়ী ও চক্রান্তকারীদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিও জানান খালেদা জিয়া।

অপর এক শোকবার্তায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নিহতদের স্মরণে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেন। তিনি জানান, নির্মমতা, বর্বরতা, পৈশাচিকতা ও সন্ত্রাসবাদের ইতিহাসে এই ঘটনাও নজিরবিহীন ও কলঙ্কজনক। হামলাকারীরা মানবতা ও মানবজাতির শত্রু। এদের এখনই রুখে দিতে না পারলে মানবতা ও মানবজাতি চরম অস্তিত্ব সংকটে পড়বে।

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় রাতে বাস্তিল দুর্গ পতন দিবসে ফ্রান্সের নিস শহরে আতশবাজি দর্শনরত জনতার ওপর দ্রুতগতির ট্রাক তুলে দিয়ে ৮০ জনকে হত্যা করে এক হামলাকারী। এ হামলায় আহত হয়েছেন বহু লোক।

এ ঘটনার পরপরই ওই ট্রাকচালককে গুলি করে হত্যা করেন দেশটির আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। পুলিশের গুলিতে নিহত হওয়ার আগে ওই হামলাকারী প্রকাশ্যে গুলি চালায়। হত্যায় ব্যবহার করা ২৫ টনের ট্রাকটির ভেতর থেকে অস্ত্র ও গ্রেনেড উদ্ধার করা হয়েছে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই