মেইন ম্যেনু

বগুড়ায় মসজিদে ককটেল, যুবলীগ নেতার বিরুদ্ধে মামলা

বগুড়া : তারাবি নামাজের সময় বগুড়ার গাবতলী উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদের ছাদে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় উপজেলা যুবলীগের সদস্য সাব্বির হাসান জাফরু পাইকারের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচ আজম খান।

বৃহস্পতিবার তিনি মামলাটি দায়ের করেছেন। অভিযোগে যুবলীগ নেতা জাফরু পাইকারসহ আরও ১৫/২০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

বুধবার রাত পৌনে ১০টায় গাবতলী উপজেলা পরিষদ জামে মসজিদ লক্ষ্য করে কয়েকটি ককটেল নিক্ষেপ করা হয়। এ সময় কয়েকটি ককটেল মসজিদের ছাদে এবং পার্শ্ববর্তী উপজেলা সমবায় সমিতি লিমিটেডের অফিস কক্ষের দক্ষিণ ধারের জানালায় আঘাত লেগে বিস্ফোরিত হয়। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতি লিমিটেডের চেয়ারম্যান এএইচ আজম খান বাদী হয়ে উপজেলা যুবলীগ নেতা সাব্বির হাসান জাফরু পাইকারের নাম উল্লেখ করে এবং ১৫/২০ জন অজ্ঞাত বলে থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন।

গাবতলী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহিদ মাহমুদ খান জানান, এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ থানায় দেয়া হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গাবতলী উপজেলা যুবলীগ নেতা সাব্বির হাসান জাফরু পাইকার বলেন, ‘গত ৮ জুন বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় তিনি বগুড়া থেকে মাইক্রোবাসে ঢাকায় রওনা করেন। রাতে ঢাকা নাখালপাড়ায় এমপি হোস্টেলে বগুড়া-৭ আসনের এমপি অ্যাড. মুহম্মাদ আলতাফ আলীর সঙ্গে সাক্ষাত করেন। ঘটনার রাতে তিনি গাবতলীতে না থাকলেও আওয়ামী লীগ নেতা আজম খান রাজনৈতিক প্রতিহিংসামূলক তার নামে থানায় মিথ্যা অভিযোগ করেছেন।’






মন্তব্য চালু নেই