মেইন ম্যেনু

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটুক্তি : ১৩ মাসেও তারেকের মামলার প্রতিবেদন নেই

বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ ২ জনের বিরুদ্ধে ‘বঙ্গবন্ধু রাজাকার, খুনি ও পাকবন্ধু’ বলার অভিযোগে দায়ের করা মামলার প্রতিবেদন ১৩ মাসেও দিতে পারেনি পল্টন থানা পুলিশ।

গত ২৩ মার্চ মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের কোতয়ালী থানার সভাপতি ফজলুল করিম আরিফ পাটোয়ারীর দায়ের করা মামলায় রোববার (২৪ এপ্রিল) প্রতিবেদন দাখিল করার কথা ছিল। কিন্তু পল্টন থানার পুলিশ প্রতিবেদন দাখিল না করায় ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সাদবীর ইয়াছির আহসান চৌধুরী আগামী ২৩ আগস্ট আবারও প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নতুন তারিখ ধার্য করেন।

এ মামলার অপর আসামি হলেন- বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিশেষ উপদেষ্টা এবং বিএনপির বৈদেশিক দূত জাহিদ এফ সরদার সাদী।

চলতি বছরের ২৩ মার্চ মুক্তিযোদ্ধা প্রজন্ম লীগের কোতয়ালী থানার সভাপতি ফজলুল করিম আরিফ পাটোয়ারী আদালতে এ-সংক্রান্ত মামলাটি দায়ের করেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২০১৪ সালের ১৫ ডিসেম্বর তারেক রহমান ইস্ট লন্ডনের দ্যা আট্টিয়াম অডিটরিয়ামে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানে বলেন, ‘১৯৭১ সালে স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় বঙ্গবন্ধু রাজাকার, খুনি ও পাকবন্ধু ছিলেন। তিনি শখের বন্দি ছিলেন এবং মুক্তিযুদ্ধে শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের কোনো ভূমিকা নেই।’

এর পর ২০১৪ সালের ৩০ ডিসেম্বর আসামি সাদী এক লিখিত বিবৃতিতে বিদেশি সাংবাদিকদের কাছে শেখ মুজিবর রহমান মরণোত্তর বিচার, শাস্তি ও মরণোত্তর ফাঁসি দাবি করেন।

উল্লিখিত দু’জনের বক্তব্য বাংলাদেশে ইলেকট্রনিক্স মিডিয়াসহ সকল প্রিন্ট মিডিয়ায় প্রকাশ হয়। যা মানহানিকর বলে মামলায় উল্লেখ করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই