মেইন ম্যেনু

‘বন্দুকের মুখে বাধ্য’ হয়েছিলেন হাসানাত, দাবি স্ত্রীর

গুলশানের হলি আর্টিজান বেকারিতে বন্দুকধারীকের জিম্মি সঙ্কটের বেশ কিছু ভিডিও সামাজিক যাগাযোগ মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে পড়ার পর যাকে ঘিরে তীব্র বিতর্ক আর রহস্যের জন্ম হয়, সেই হাসানাত রেজা করিমের স্ত্রী বিবিসি বাংলার কাছে দাবি করেছেন, ‘বন্দুকের মুখেই বাধ্য হয়েছেন তার স্বামী। ঘটনার দিন ওই বেকারিতে হাসানাতের সঙ্গে দুই সন্তানসহ ছিলেন তার স্ত্রীও।’

একজন কোরিয় নাগরিকের করা ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে হাসনাত জিম্মিকালীন বেকারির দোতলার বারান্দা দিয়ে স্বাভাবিক ভঙ্গিমায় হেঁটে যাচ্ছেন। আরেকটি ভিডিওতে দেখা যায়, নিচতলার দরজার পাশে কারো সাথে কথা বলছেন তিনি।

তবে সেদিন তার সঙ্গে থাকা স্ত্রী দাবি করেছেন, ‘বন্দুকধারীরাই হাসানাতকে দরজা খুলতে ও বন্ধ করতে বলেছিল। দোতলার বারন্দা দিয়ে হাসানাত যে হেঁটে গিয়েছিলেন, সেটিও বন্দুকধারীদের কথাতেই।’

কোরিয় নাগরিকের ধারণ করা ভিডিওগুলো ফেসবুকে প্রকাশ করার সাথে সাথেই তা ভাইরাল হয়ে পড়ে এবং হাসানাতকে ঘিরে তীব্র বিতর্কের জন্ম হয়।

গত ১ জুলাই শুক্রবার দিবাগত রাত পৌনে নয়টার দিকে গুলশানের ৭৯ নম্বরের আর্টিজান বেকারিতে সন্ত্রাসীরা অতর্কিত হামলা চালায়। এরপর ওই রেস্তোরাঁয় থাকা ২০ জন বিদেশি নাগরিকসহ ৩০-৩৫ জন লোকজনকে জিম্মি করে রাখে। এ সময় পুলিশের সঙ্গে সন্ত্রাসীদের গোলাগুলি হয়।

গোলাগুলিতে ডিবির সহকারী কমিশনার (এসি) রবিউল ইসলাম এবং বনানী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সালাউদ্দিন নিহত হয়েছেন। আহত হন প্রায় ৩০ জন পুলিশ সদস্য। নিহত দুই পুলিশ কর্মকর্তা হলেন- ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সহকারী কমিশনার রবিউল ইসলাম ও বনানী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সালাহউদ্দিন। আহতদের মধ্যে ১৯ জন গুলশানের ইউনাইটেড হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

জঙ্গি হামলা চালিয়ে দেশি-বিদেশি নাগরিকদের জিম্মি করার ঘটনায় দায় স্বীকার করেছে মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক আন্তর্জাতিক জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস)। এই ধরনের অতর্কিত হামলা চালিয়ে মানুষজনকে জিম্মি করার ঘটনা বাংলাদেশে এটাই প্রথম।

শনিবার ভোরে সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে যৌথবাহিনী অভিযান চালায়। চালিয়ে জিম্মি হওয়া ১৩ জনকে জীবিত উদ্ধার করে এবং ২০ জন বিদেশি নাগরিকের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে বলে সংবাদ সম্মেলনে জানান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাঈম আশফাক। এ ঘটনায় বাংলাদশে দুই দিনের শোক পাল করে বাংলাদেশ।






মন্তব্য চালু নেই