মেইন ম্যেনু

বন্ধুর অনুরোধ রাখতে গিয়েই খুন হয় দীপন

মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা ও বিজ্ঞান লেখক অভিজিৎ রায়ের বই ছাপানোর কারণেই জাগৃতির প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপনকে হত্যা করা হয়েছে বলে মনে করছেন তার বাবা অধ্যাপক আবুল কাশেম ফজলুল হক। তিনি বলেছেন, ‘অভিজিৎ ছিল দীপনের বন্ধু। সে কী লিখেছে, কী বলেছে তার বিষয়ে দীপনের খুব বেশি যে ধারণা ছিল তা না। বন্ধু অনুরোধ করেছে তাই সে তার বই ছাপিয়ে দিয়েছে। অভিজিতের যোগ্যতা সম্পর্কে সন্দেহের কিছু নাই। দীপন যে অভিজিতের মতাদর্শ জেনে তার বই বের করেছে তা না। সে তার কয়েকটি বই বের করেছে। সে জন্যে তাকে প্রাণ দিতে হয়েছে। এছাড়া আর কোনো কারণ আছে বলে আমার মনে হয় না। যতই গোয়েন্দা তদন্ত করা হোক না কেন তাকে হত্যা করার অন্য কোনো কারণ কেউ বের করতে পারবে না।’

‘প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপন হত্যার দৃষ্টান্তমুলক বিচার চাই’ এই ব্যানারে বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর কাঁটাবনে কনকর্ড এম্পোরিয়াম শপিং কমপ্লেক্স প্রকাশকবৃন্দ কর্তৃক আয়োজিত প্রতিবাদ সভায় এসব কথা বলেন তিনি।

প্রকাশক দেলোয়ার হাসানের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় আরো বক্তব্য রাখেন প্রলয় প্রকাশনীর প্রকাশক খান মাহাবুব, সাহস প্রকাশনীর প্রকাশক নাজমুল হুদা রতন, কবি বকুল আশরাফ প্রমুখ।

অধ্যাপক আবুল কাশেম আরো বলেন, ‘আমি অসহায়, আমি একলা কিন্তু সত্যের একটা শক্তি আছে। সেকারণেই আমি এখনো বেঁচে আছি। দীপন ও তো আওয়ামী লীগ কিংবা বিএনপি করতো না। ধর্ম নিয়ে বিতর্কের মধ্যে সে কখনোই যেত না। কারণ ধর্ম নিয়ে তর্ক-বিতর্ক করে কোনো কল্যাণ হবে না। যারা ধর্মনিরপেক্ষতার কথা বলে, যারা গণতন্ত্রের কথা বলে তারা কি সত্যি কথা বলে? যদি গণতন্ত্র থাকতো তাহলে তো গণহারে মানুষের মৃত্যু হতো না।’

তার বিষয়ে আওয়ামী লীগ নেতাদের মন্তব্যের বিষয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ‘আমি বলেছি যে আমি দীপন হত্যার বিচার চাই না। এটা আমি যে রাগের মাথায় বলেছি, ক্ষুদ্ধ হয়ে বলেছি তা কিন্তু না। আমি ৫২ বছর ধরে লিখি। আমার ৫২ বছরের চিন্তার একটা ইতিহাস আছে, ঐতিহ্য আছে। আমি কেনাবেচার মানুষ নই। অনেক ভুল কাজ এমনকি অন্যায় কাজ আমি করতে পারি কিন্তু আমি কলম হাতে নিলে আমি সততা রক্ষা করি। লেখার সময়ে আমি চূড়ান্ত সততা রক্ষা করি।’

এসময় তিনি নিজেকে দল নিরপেক্ষ বলে দাবি করেন। তিনি বলেন, ‘আমি আওয়ামী লীগ কিংবা বিএনপি কোনটাই সমর্থন করি না। কারণ তারা ধর্মনিরপেক্ষতার নামে, গণতন্ত্রের নামে, ধর্মের নামে দেশকে সর্বনাশের দিকে নিয়ে যাচ্ছে।’






মন্তব্য চালু নেই