মেইন ম্যেনু

বন্ধ হচ্ছে গ্রিসের সব ব্যাংক

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে গ্রিসের সব ব্যাংক। আগামীকাল মঙ্গলবার থেকে ব্যাংক বন্ধ হওয়ার পাশাপাশি ব্যাংক লেনদেনের ওপর আরোপ হচ্ছে সরকারি নিয়ন্ত্রণ। গ্রিসের প্রধানমন্ত্রী অ্যালেক্সিস সিপরাস এ তথ্য জানিয়েছেন।

৩০ জুন বেইল-আউটের সময়সীমা শেষ হচ্ছে। এ দিন ইন্টারন্যাশনাল মনিটারি ফান্ডকে (আইএমএফ) ১.৬ বিলিয়ন ইউরো পরিশোধ করতে হবে গ্রিসকে। কিন্তু ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক গ্রিসকে কোনো অর্থ দিচ্ছে না- এমন সিদ্ধান্ত বহাল রয়েছে। এই অবস্থায় অ্যালেক্সিস সিপরাস জানিয়েছেন, গ্রিকদের অর্থের নিরাপত্তা দিতে ব্যাংক লেনদেনে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করা হচ্ছে।

ঋণ পরিশোধে ব্যর্থ হওয়া, ইউরোপীয় ইউনিয়ন নতুন করে অর্থ সাহায্য দিতে না চাওয়া এবং অর্থ পরিশোধের মেয়াদ না বাড়ানোয় ইউরোজোন থেকে বেরিয়ে যাওয়া ছাড়া গ্রিসের সামনে আর কোনো বিকল্প নেই।

সাপ্তাহিক ছুটির দিন রোববার গ্রিসে কার্ড ব্যবহার করে অর্থ উত্তোলনের জন্য দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকে গ্রিকরা। একই সময় নিয়ন্ত্রণ আরোপের কাজ করায় অর্থ উত্তোলনে ভোগান্তিতে পড়তে হয় তাদের।

৭ জুলাই পর্যন্ত ব্যাংক বন্ধ থাকবে। বিদেশি ঋণদাতাদের দেওয়া অর্থ গ্রিস নেবে কি নেবে না, এ-সংক্রান্ত গণভোট অনুষ্ঠিত হবে ৫ জুলাই। ৭ জুলাই ঋণসংকট নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে যাবে গ্রিস। হয়তো এ দিনই ইউরোজোনে থাকা না-থাকা নিয়ে স্পষ্ট ঘোষণ দেবে দেশটি।

ক্যাপিটাল কন্ট্রোল

ক্যাপিটাল কন্ট্রোল অর্থাৎ ব্যাংক লেনদেনের ওপর নিয়ন্ত্রণ আরোপ হলে প্রতিদিন একজন ৬০ ইউরোর বেশি অর্থ উত্তোলন করতে পারবে না। বিদেশি অর্থ লেনদেন (ফরেন এক্সচেঞ্জ) বন্ধ থাকবে। তবে অনুমতি সাপেক্ষে শুধু জরুরি প্রয়োজনে এবং আগে থেকে অনুমোদিত অর্থ উত্তোলন করা যাবে।

তথ্যসূত্র : বিবিসি অনলাইন।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই