মেইন ম্যেনু

বরিশালে সাংবাদিক প্রহৃতের ঘটনায় অবস্থান কর্মবিরতী

বরিশাল প্রতিনিধি॥ মোবাইল চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের ভিডিও চিত্রধারনকালে একটি বেসরকারী টেলিভিশনের ক্যামেরা পার্সনকে মারধর ও ক্যামেরা ভাংচুরের ঘটনায় বুধবার রাতে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

অপরদিকে সাংবাদিক সেলিম রেজার ওপর হামলা ও ক্যামেরা ভাংচুরের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সকালে অবস্থান কর্মবিরতী পালন করেছে বরিশাল টেলিভশন মিডিয়া এ্যাসোসিয়েশনের সাংবাদিকরা। সকাল নয়টায় নগরীর অশ্বিনী কুমার টাউন হলের সামনের সড়কে ক্যামেরা ও বুম রেখে এ কর্মসূচী পালন করা হয়। এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোঃ হুমাউন কবিরের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আখতার ফারুক শাহীন, সহ-সভাপতি মোঃ আলী জসিম, যুগ্ম সাধারন সাধারণ সম্পাদক নিকুঞ্জ বালা পলাশ, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক শাহীন হাসান, সাংবাদিক সুখেন্দু এদবর, পারভেজ রাসেল, ফিরোজ মোস্তফা প্রমুখ। বক্তারা বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের হামলাকারী ছাত্রদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণের দাবী করেন।

জানা গেছে, বুধবার রাতে আহত সাংবাদিক সেলিম রেজা বাদি হয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের গণিত বিভাগের প্রথমবর্ষের ছাত্র আবিদ হোসেন, আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র লুৎফর রহমান মোল্লা, ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রথমবর্ষের ছাত্র আশিষ ঢালী, একই বিভাগের প্রথমবর্ষের ছাত্র ইসমাইল সরদার, ইংরেজী ২য় বর্ষের ছাত্র মেহেদি হাসান ও ইমনসহ অজ্ঞাতনামা ৫০-৬০ জনকে আসামি করে কোতোয়ালী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার নামধারী ছয়জনের মধ্যে ইমন ছাড়া ৫ জনকে বুধবার ঘটনার পরপরই গ্রেফতার করে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দুপুরে সাংবাদিক সেলিম রেজার মামলায় ওই পাঁচজনকে গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরন করা হয়।

উল্লেখ্য, বুধবার বিকেলে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে পুলিশের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সাংবাদিক, পুলিশসহ কমপক্ষে ১০ জনকে পিটিয়ে আহত করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে পুলিশ ৯ রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করেন।






মন্তব্য চালু নেই