মেইন ম্যেনু

বরিশালে স্ত্রী হত্যার ঘটনায় স্বামীর ফাঁসির আদেশ

স্বামীর পরকীয়ায় বাঁধা দেয়ায় স্ত্রীকে হত্যার ঘটনায় সোমবার দুপুরে ঘাতক স্বামী শাহ আলম হাওলাদারের ফাঁসির আদেশ দিয়েছে আদালত। ঘটনাটি বরিশালের বানারীপাড়া উপজেলার পশ্চিম বিশারকান্দি গ্রামের।

বরিশাল জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক আনোয়ারুল হক আসামির উপস্থিতিতে চাঞ্চল্যকর এ মামলার রায় ঘোষণা করেন। ফাঁসির দন্ডাদেশপ্রাপ্ত শাহে আলম পশ্চিম বিশারকান্দি গ্রামের আ. মান্নান হাওলাদারের পুত্র। একই মামলায় ইউসুফ হাওলাতার ও পরকীয়া প্রেমিকা শাহিদা বেগমকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন আদালত।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ঘটনার ১০বছর আগে পশ্চিম বিশারকান্দি গ্রামের আ. মান্নান হাওলাদারের পুত্র শাহ আলম হাওলাদারের সাথে একই গ্রামের লাইজু বেগমের সামাজিক ভাবে বিয়ে হয়। বিয়ের পর সোনিয়া ও রিয়াজুল নামের দুই সন্তানের পিতা হন শাহআলম। এরইমধ্যে একই এলাকার শাহিদা বেগমের সাথে পরকীয়া প্রেমে জড়িয়ে পরে শাহে আলম। স্বামীর পরকীয়া প্রেমে বাঁধা দেয়ায় স্ত্রী লাইজু বেগমকে শারিরিক নির্যাতনের একপর্যায়ে ২০০৯ সালের ২০ জানুয়ারি শ্বাসরুদ্ধ করে হত্যা করে স্বামী শাহ আলম। এ ঘটনায় লাইজুর ভাই দুলাল হোসেন বাদি হয়ে বানারীপাড়া থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার পর থানার এস.আই সনজিত চন্দ্র শীল প্রধান অভিযুক্ত শাহ আলম হাওলাদার, উত্তর বিশারকান্দি গ্রামের মৃত মোসলেম হাওলাদারের পুত্র ইউসুফ হাওলাদার ও সাহাদাত হাওলাদারের কন্যা শাহিদা বেগমকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। মামলায় ১৩ জন স্বাক্ষীর মধ্যে ১০ জনের স্বাক্ষ্য গ্রহণ শেষে স্বামী শাহআলমের বিরুদ্ধে স্ত্রী হত্যার অভিযোগ প্রমানিত হয়। পরবর্তীতে সোমবার দুপুরে বিচারক আনোয়ারুল হক উলে¬খিত রায় ঘোষণা করেন। সূত্রে আরও জানা গেছে, দন্ডপ্রাপ্ত শাহআলম আগামি সাত দিনের মধ্যে উচ্চ আদালতে আপীল করার সুযোগ পাবেন।






মন্তব্য চালু নেই