মেইন ম্যেনু

বর্ষবরণ সাজে গয়না

চলতি বছরের বাকি মাত্র কটা দিন। প্রকৃতির সঙ্গে প্রতিটি বাঙালি হৃদয় অপেক্ষায় আছে নতুন বছরকে সাদরে বরণ করে নিতে। খাবার দাবার, পোশাক, আচারে সবকিছুতেই থাকতে পারে বাঙালিয়ানার ছাপ। তাছাড়া সব উৎসব কর্মই যেন সম্পূর্ণ হয় নারীর কোমল হাত ধরে। তার উচ্ছ্বল উপস্থিতি উৎসবের পরিপূর্ণতা দেয় শতভাগ। তাইতো সুতি শাড়ি আর বাহারি চুড়ি-দুলে বাঙালি ললনারা নিজেকে সাজাতে পিছিয়ে থাকে না।

গোটা বাঙালি জাতির প্রাণের এ উৎবসকে ঘিরে বেশ আগে থেকে শুরু হয় নানা প্রস্তুতি। সেই প্রস্তুতিতে আর একটু সৌন্দর্য সচেতনতা যোগ করতে আজকের বিশেষ আয়োজন ‘পহেলা বৈশাখের গয়না সাজ’।

বৈশাখের চিরায়ত সাজে মাটির গহনা অন্যতম অনুষঙ্গ। আজকের তরুণীদের সাজাতে বাজারে আরও হাজির হয়েছে মেটালের মালা, বড় লকেট, কাঠ, বাঁশ, বেতসহ নানা রকম গয়না। শাড়ির পাশাপাশি নানা রকম টপস, থ্রিপিসের সঙ্গে এসব গয়না মিলিয়ে পরতে পারেন।

বৈশাখ উপলক্ষে জুয়েলারি শপে মাটি, মেটাল, কড়ি ও বিডসের নানা রকম গয়না পাওয়া যাচ্ছে। হাতের সাজে নিতে পারেন মাটির বালা, কাঁচের চুড়ি, মেটালের নানা ডিজাইনের বা পাথর বসানো চুড়ি।

সাজ পোশাক যেমনই হোক না কেন একখানি নান্দনিক গহনা তুলে ধরতে পারে সবার মাঝে আপনাকে করবে আলাদা। এক কিংবা দুই লহরের লম্বা মালা শাড়ি কিংবা টপসের সঙ্গে ভীষণ মানাবে।

ইদানীং বিডস ও মেটালের গয়না বেশ চলছে। এবারের বৈশাখে আপনিও বেছে নিতে পারেন এমন গয়না। কিনতে পারেন বিভিন্ন ফলের বিচির গয়না, প্লাস্টিক, কাঁচ পুঁতি আর কাঠ পুঁতির গয়না। এবারের বৈশাখে পুঁতির সঙ্গে মেটাল মিলিয়ে তৈরি করা হালকা ও ভারী নকশাদার বাহারি গয়না পাওয়া যাচ্ছে। বৈশাখী সাজে অনায়াসে এসব গয়না মানিয়ে যাবে। নানা রকম ঝুনঝুনি, চুমকি, পুঁতি ব্যবহার করা মাটির গয়নাও আপনার সাজে ব্যাবহার করতে পারেন। বৈশাখী সাজের বড় একটি অংশ জুড়ে থাকে ফুলের গয়না। ফুলেল সাজে নিজেকে অনন্য করে তুলতে বেছে নিতে পারেন রং-বেরঙের ফুলের গয়না।

এখন প্রয়োজন আপনার রুচি আর সাধ্যের সমন্বয় করে গয়না কেনার পালা। এসব গয়না ১৫০ থেকে ৩৫০ টাকার মধ্যে অনায়াসে পেয়ে যাবেন। হাতের চুড়ি পাবেন সেট অনুযায়ী ভিন্ন দামে।






মন্তব্য চালু নেই