মেইন ম্যেনু

বলিউডের যেসব নায়ক আসলে টাকমাথা!

পছন্দের নায়কের চুলের বাহার দেখে অনেকেই পাগল প্রায়। অনেক ভক্ত প্রিয় নায়কের মাথায় পছন্দের কাটিং দেখে নিজেও সেই কাট দিয়ে থাকেন। কিন্তু আপনি কী জানেন আপনার সেই প্রিয় নায়কের মাথার চুলগুলো আসল না নকল? এটা হয়তো অনেকেরই জানার কথা না। তাছাড়া সিনেমার প্রয়োজনে অনেক নায়কই এখন নকল চুল ব্যবহার করে থাকেন। তাই এতশত নকলের ভিড়ে আসল চেনাটা বড়ই মুশকিল। তবে এবার আপনারই কয়েকজন প্রিয় টাকমাথা নায়ককে পরিচয় করিয়ে দেব। দেখে নেয়া যাক বলিউডে কোন কোন নায়কের টাক মাথা ছিল।

সালমান খান : বেশ কয়েকবছর আগেই সালমান খান চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যায় ভুগছিলেন। তারপর তিনি দুবাই গিয়ে হেয়ার ট্রান্সপ্ল্যান্ট করান। তার ফিল্ম ক্যারিয়ারের সমস্যাও দূর হয়।

সঞ্জয় দত্ত : ক্রমাগত চুল পড়ে যাওয়ার ফলে একটা সময় সঞ্জয়ের ক্যারিয়ারই প্রশ্নের মুখে পড়ে গিয়েছিল। বাধ্য হয়ে তিনি হেয়ার ট্রান্সপ্ল্যান্ট করান।

গোবিন্দ : একটা সময় গিয়েছে, যখন মাথার সামনের দিকের টাক ঢাকার জন্য ক্রমাগত কপালে চুল ফেলে রাখতে হত গোবিন্দকে। শেষ পর্যন্ত মাথায় নকল চুল লাগিয়ে মান বাঁচান তিনি।

অমিতাভ বচ্চন : বয়সের কারণেই চুল পড়ে যাচ্ছিল অমিতাভের। তিনিও তাই মাথায় কৃত্রিম চুল লাগাতে বাধ্য হন। তবে তার অল্প বয়সের হেয়ার স্টাইল তিনি কৃত্রিম চুলেও অক্ষুণ্ন রেখেছেন।

অক্ষয় কু‌মার : চুল ছোট করে কেটেও চুল পড়ে যাওয়ার সমস্যাটি গোপন করতে পারছিলেন না অক্ষয়। ফলে বাধ্য হন তিনি হেয়ার ট্রান্সপ্ল্যান্ট করাতে।

বিবেক ওবেরয় : অল্প বয়সেই টাক পড়ে যাচ্ছিল বিবেকের। ফলে অপারেশন করিয়ে মাথায় নকল চুল লাগিয়ে নেন তিনি।

হিমেশ রেশমিয়া : অনেকেই বলেন, চুলের স্বল্পতা লুকনোর জন্যই নাকি সারাক্ষণ টুপি পরে থাকতেন এই গায়ক-নায়ক। হেয়ার ট্রান্সপ্লান্ট করানোর পর মাথা থেকে টুপি সরে গিয়েছে তার।

কপিল শর্মা : টিভি কমেডিয়ান ও অভিনেতা কপিলও টাক গোপন করতে মাথায় কৃত্রিম চুল বসাতে বাধ্য হন।






মন্তব্য চালু নেই