মেইন ম্যেনু

‘বলে দেবেন, কুলাঙ্গার যেন আর মানুষ না পোড়ায়’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বগুড়াবাসীর উদ্দেশে বলেছেন, মানুষ যখন নৌকায় ভোট দেয় তখন দেশের উন্নয়ন হয়। বিএনপি-জামায়াত লুটপাট করে, সন্ত্রাস করে ও মানুষ পোড়ায়।

বগুড়াবাসীর উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘এরপর খালেদা জিয়া যখন এখানে আসবেন তখন আপনারা তাকে বলবেন তিনি যেন আর মানুষ না পোড়ান। বলে দেবেন উনার যে একটা কুলাঙ্গার আছে সে যেন মানুষ না পোড়ায়।’

আজ বৃহস্পতিবার বিকেলে বগুড়ার আলতাফুন্নেসা খেলার মাঠে স্থানীয় আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় এসব কথা বলেন তিনি।

২০০৯ সালের জানুয়ারিতে ক্ষমতা গ্রহণের পর গত সাত বছরে এটিই তার প্রথম বগুড়া সফর। দুপুর ২টা ৫০ মিনিটে তিনি জনসভাস্থলে এসে পৌঁছান এবং বিকেল পৌনে ৪টার দিকে তিনি তার ভাষণ শুরু করেন।

তিনি বলেন, ‘বগুড়া থেকে আওয়ামী লীগ সবসময় আসন কম পেয়েছে, কিন্তু উন্নয়নে অবহেলা করেনি। আওয়ামী লীগ সরকার বগুড়ায় ব্যাপক উন্নয়ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছে। কারণ আওয়ামী লীগ জনগণকে দিতে জানে। নৌকা মার্কার লোকেরা কখনো কাউকে ঠকায় না।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ক্ষমতাসীন হওয়ার পর আওয়ামী লীগ সরকার ১০০টি বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেছে। বিএনপি যখন ক্ষমতায় ছিলো তারা বিদ্যুৎ উৎপাদন না করে লুটপাট করেছে।’

বগুড়াকে অর্থনৈতিক অঞ্চল হিসেবে গড়ে তোলা হবে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘বগুড়া একটি পুরানো শহর। এখানে বিশ্ববিদ্যালয় নেই। আমরা ১৯৯৬ সালে ক্ষমতায় আসার পর এখানে বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার করার লক্ষ্যে গেজেট পাস করেছিলাম। বিএনপি এসে তা বাতিল করে। শিগগিরই আমরা বগুড়াতে একটি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠ করবো।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরাই পারি দেশের উন্নয়ন করতে। বিএনপি-জামায়াত পারে না। কারণ তারা সন্ত্রাস, লুটপাট, জ্বালাও-পোড়াও করে।

তিনি বলেন ‘আমি আজ আপনাদের কিছু উপহার ‍দিতে এসেছি।’

এরপর তিনি বগুড়ায় বেশ কিছু প্রকল্প ঘোষণা করেন। সেগুলো হলো- প্রকল্পগুলো হলো-১০তলা চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ভবন, আঞ্চলিক পাসপোর্ট অফিস, গাবতলী ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন, বগুড়া মোকামতলা পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র, শিবগঞ্জ, বগুড়া, কুন্দরহাট হাইওয়ে পুলিশ আউটপোস্ট, নন্দীগ্রাম, শিবগঞ্জের আলিয়ারহাটে অবস্থিত বগুড়া এতিম ও প্রতিবন্ধী ছেলেমেয়েদের কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, বগুড়া কাহালু, ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশন এর নির্মাণকাজ, নন্দীগ্রাম ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স স্টেশনের নির্মাণ কাজ।বাংলামেইল






মন্তব্য চালু নেই