মেইন ম্যেনু

বসের মন জয় করতে করণীয়

কর্মক্ষেত্রে দ্রুত পদোন্নতি কে না চায়! এজন্য কাজের পাশাপাশি অবলম্বন করতে হয় বেশ কিছু কৌশল। সাম্প্রতিক গবেষণায় জানা গেছে, অফিসের বস সবসময় আশা করেন কর্মীরা সময়ের সাশ্রয়ী হোন এবং কর্মশক্তির বলে প্রতিষ্ঠানকে ভালো একটি প্রতিযোগিতামূলক অবস্থানে নিয়ে যাবে। ঝুঁকি ও দায়িত্ব নিয়ে কাজ করে এমন কর্মীর প্রতি নিয়োগকর্তা সন্তুষ্ট থাকেন।

আসুন জেনে নেয়া যাক কয়েকটি চমকপ্রদ কৌশল, যা প্রয়োগ করলে আপনি সহজেই বসের মন জয় করতে পারবেন।

১ নির্দিষ্ট সময়ের আগে কোনো কাজ সফলভাবে সম্পন্ন করা মানে প্রতিষ্ঠানের সাফল্যে কার্যকর ভূমিকা রাখা। কর্মীকে ঝুঁকি নিয়ে কাজ করতে হয়, এর ফলে তার উপর প্রতিষ্ঠানের কোনো নেতিবাচক মনোভাব থাকে না। ঝুঁকি নেয়া বলতে ভালো কাজের জন্য প্রশংসার পাশাপাশি কোনো ভুল কাজের জন্য কর্মীর দায়বদ্ধতার ব্যপারটিকেও বোঝায়।

২ একাধিক গুণসম্পন্ন কর্মীর প্রতি বসের সুনজর থাকে। স্ব-প্রণোদিত, আত্মবিশ্বাসী এবং কাজের প্রতি উৎসর্গীকৃত কর্মী নিশ্চিত পদোন্নতি লাভ করে।

যেমন- বড় কোনো কনফারেন্স বা বসের সঙ্গে সাময়িক মিটিংয়ে কোনো কর্মী কাজের সব তথ্যাদি সম্পর্কে নিজেকে প্রস্তুত করে নিলে তার কাজের প্রতি বসের আস্থা বাড়ে।

৩ বসকে মুগ্ধ করতে দক্ষতাও একটি অপরিহার্য গুণ। কিন্তু সঠিক সময়ে কাজ সম্পন্ন করতে না পারলে এই দক্ষতাকে মূল্যায়ন করা হয় না। উপরন্তু মনে করা হয়, অদক্ষতার জন্যই কর্মী কাজে বিলম্ব করে। দ্রুত কর্মক্ষেত্রে আসা এবং কাঙ্খিত সময়ে কাজ সম্পন্ন করা কর্মীদের অধিক দক্ষ মনে করা হয়।

৪ প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের জন্য নতুন নতুন ধারণা দিতে পারলে কর্মীকে কাজে উৎসর্গীকৃত মনে করা হয় এবং নিয়োগকর্তা তার সহজাত সৃজনীশক্তিতে মুগ্ধ হয়।






মন্তব্য চালু নেই